• আজ বুধবার, ২৯ বৈশাখ, ১৪২৮ ৷ ১২ মে, ২০২১ ৷

নিষিদ্ধ হলেন ইংল্যান্ডের ওপেনার অ্যালেক্স হেলস

❏ শনিবার, এপ্রিল ২৭, ২০১৯ খেলা

স্পোর্টস ডেস্কঃ মাত্র কয়েক দিনের ব্যাবধানে মোট তিনবার সংবাদ শিরোনাম হলেন ইংল্যান্ড জাতীয় দলের ওপেনার অ্যালেক্স হেলস। শুরুটা হয়েছিল চমক জাগানিয়া। ইংল্যান্ড দলে গত দুই-তিন বছর ধরে নিয়মিত খেলা হেলস ‘অটোমেটিক চয়েস’ হিসেবে ডাক পান ইংলিশদের বিশ্বকাপ স্কোয়াডে।

কিন্তু বিষণ্ণতা ও ব্যক্তিগত কারণে অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্রিকেট থেকে বিরতির ঘোষণা দেন ডানহাতি এই ওপেনার। কয়েকদিন যেতে না যেতেই হুট করে আবার ফিরে আসেন গত সপ্তাহে। আর এবার সংবাদ হয়েছেন আরো বড় চমক দিয়ে। অননুমোদিত ড্রাগ নিয়ে নিষিদ্ধ হয়েছেন এই তারকা ব্যাটসম্যান।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ‘দি গার্ডিয়ান’ জানিয়েছে, নিজেকে চাঙ্গা করার জন্য ড্রাগ নিয়েছেন হেলস। ডোপ টেস্টে তাঁর ড্রাগ নেওয়ার বিষয়টি ধরা পড়ে। সাম্প্রতিক সময়ে এই নিয়ে দ্বিতীয়বার ডোপ টেস্টে ধরা পড়লেন এই ওপেনার। শাস্তি হিসেবে তিন সপ্তাহের জন্য বিশ্বকাপ দলের এই ওপেনারকে নিষিদ্ধ করে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড। তবে ইংলিশ ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকে বিষয়টি নিয়ে আনুষ্ঠানিক কোনো বিবৃতি দেওয়া হয়নি। তবে ইসিবির একজন মুখপাত্র সংবাদমাধ্যমটিকে জানিয়েছেন, ‘গোপনীয়তা রক্ষা করা আমাদের দায়িত্ব। তাই এ বিষয়ে আমরা আর কোনো মন্তব্য করব না।’

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমটির দেওয়া তথ্যমতে, ইসিবির নিয়ম অনুযায়ী সকল পেশাদার পুরুষ ক্রিকেটার এবং বোর্ডের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ নারী ক্রিকেটারদের মৌসুমের শুরু ও শেষে দুইবার ডোপ টেস্টে দিতে হয়। ডোপ টেস্টে সবার চুলের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। চাঙ্গা হওয়ার জন্য কেউ যদি নিষিদ্ধ কোনো ড্রাগ নিয়েও থাকে, তাহলে চুলের নমুনা পরীক্ষা করলে তিন মাস পরও সেটা ধরে ফেলা যায়। টেস্টে প্রথমবার পজেটিভ হলে কোনো শাস্তি দেওয়া হয় না। তবে দ্বিতীয়বার ধরা পড়লে অবধারিত শাস্তির মুখোমুখি হতে হয়। তেমনই শাস্তি প্রযোজ্য হলো হেলসের জন্য।