🕓 সংবাদ শিরোনাম

ফুলবাডীতে সামদ্রিক শৈবাল চাষের প্রোজেক্ট পরিদর্শন করলেন অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনারপটুয়াখালীতে চাল আত্মসাতের মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান গ্রেপ্তারসরকার আইন-আদালতকে নিজের সুবিধায় ইচ্ছেমত ব্যবহার করছে -মির্জা ফখরুলআগুন নিয়ে খেলবেন না: নেতানিয়াহুকে হামাসপ্রধানইসরাইলের চেলসিকে হারিয়ে মাঠে ফিলিস্তিনের পতাকা ওড়ালেন ‘বাংলাদেশের’হামজাপ্রবল বেগে ধেয়ে আসছে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ‘টিকটিকি’রোহিঙ্গা শিবিরে ডাকাতের গুলিতে রোহিঙ্গা নেতা নিহতশিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি বাড়ললকডাউন বাড়ানোর অনুমোদন দিলেন প্রধানমন্ত্রীআল জাজিরার কার্যালয় গুঁড়িয়ে দিলো ইসরায়েল

  • আজ রবিবার, ২ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ ৷ ১৬ মে, ২০২১ ৷

মঠবাড়িয়ায় জেএমবি সদস্য আবুল কালাম আটক


❏ রবিবার, এপ্রিল ২৮, ২০১৯ দেশের খবর, বরিশাল

এস.এম.আকাশ, মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) প্রতিনিধি- পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় র‌্যাবের একটি অভিযানিক দল অভিযান চালিয়ে আবুল কালাম আজাদ (৪৫) নামের উগ্রপন্থী জঙ্গী গোষ্ঠির সক্রিয় এক সদস্যকে আটক করেছে।

র‌্যাবের গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে বরিশাল র‌্যাব-৮ এর একটি দল শনিবার দিনগত রাত সাড়ে আটটার দিকে উপজেলার সাপলোজা ইউনিয়নের বাবুরহাট এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়। বরিশাল র‌্যাব-৮ সদর দপ্তর থেকে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানানো হয়েছে।

গ্রেফতারকৃত আবুল কালাম নিষিদ্ধ জঙ্গী গোষ্ঠির সাথে সম্পৃক্ত বলে র‌্যাব জানিয়েছেন। সে পার্শ্ববর্তী বরগুনার জেলা সদর ইউনিয়নের বড় গৌরীচন্না গ্রামের মৃত আব্দুল ওহাব বিশ্বাসের ছেলে। তাকে বরিশাল র‌্যাব কার্যালয়ে নিয়ে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জেএমবি’র সক্রিয় সদস্য বলে স্বীকার করে।

র‌্যাব সূত্র ও প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানাগেছে, গোয়েন্দা নজরদারীর মাধ্যমে র‌্যাব বরিশাল অঞ্চলে কয়েকজন জঙ্গী/উগ্রপন্থীর অবস্থান সম্পর্কে তথ্য পেয়ে র‌্যাব-৮ এর আভিযানিক দল উপজেলার বাবুর হাট বাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে জেএমবি সদস্য আবুল কালাম আজাদকে আটক করে।

র‌্যাব সূত্র আরও জানায়, আবুল কালাম বরগুনার গৌরীচন্না উচ্চ বিদ্যালয় হতে এসএসসি পাশ করে মুহুরী পেশায় নিযুক্ত হন। ২০১২ সালে তালিকাভূক্ত জঙ্গী জসিম উদ্দীন রহমানির সাথে তার সরাসরি পরিচয়ের সুবাদে উগ্রপন্থী কার্যক্রম তথা জঙ্গীবাদের দিকে অনুপ্রাণিত হয়। সে জঙ্গী গোষ্ঠির দাওয়াতি শাখার একজন সক্রিয় সদস্য হয়ে জসিমউদ্দীন রহমানির সাথে সে ঘনিষ্ঠ হিসেবে আরো যুবকদের জঙ্গী তৎপরতায় অনুপ্রাণিত করার কাজ শুরু করে।

২০১৩ সালে গোপন বৈঠক করা কালীন সে পুলিশের হাতে জসিমউদ্দীন রহমানিসহ গ্রেফতার হয়েছিল। ওই মামলায় জামিনে আসার পর থেকে জেএমবির মতবাদের দাওয়াতি কার্যক্রম গোপনে নতুন করে শুরু করে। তার মাধ্যমে র‌্যাব-৮ কর্তৃক গ্রেফতার আতিকুর রহমান, বাবু , শাওন, মানিক বেপারী, আব্দুল্লাহ, আল আমিন, মাইনুদ্দিন, মেহেদী হাসান ও মিরাজ উগ্রপন্থী কার্যক্রমে সম্পৃক্ত হয়। র‌্যাব এসব জঙ্গীদের গ্রেফতারের পর এদের মূল হোতা আবুল কালাম পুরোপুরি গা ঢাকা দেয়। সে দীর্ঘদিন যাবত মঠবাড়িয়া উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকায় পালিয়ে থেকে নতুন করে জঙ্গী তৎপরতা চালাতে থাকে। গোয়েন্দা কার্যক্রমের মাধ্যমে তাকে সর্বশেষ মঠবাড়িয়ার বাবুরহাট বাজার এলাকায় অবস্থান নিশ্চিত হয়ে তাকে আটক করে।

মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ আব্দুল্লাহ বলেন, র‌্যাবের হাতে জঙ্গী আটকের বিষয়টি আমরা এখনও অবগত নই। তবে আসামি মঠবাড়িয়া থানায় হস্তান্তর করলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।