সংবাদ শিরোনাম

পণ্যবাহী ট্রাক-মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত-১খালেদার জিয়ার শারীরিক অবস্থার উন্নতি নেই, হয়নি বিদেশ যাওয়ার সিদ্ধান্তওপ্রধানমন্ত্রী কোরআন-সুন্নাহর বাইরে কিছু করেন না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীমির্জাপুরে গণহত্যা দিবস উপলক্ষে মোমবাতি প্রজ্জ্বলনশনিবার থেকে ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনাস্পুটনিক-৫ টিকা একে-৪৭’র মতো নির্ভরযোগ্য: পুতিনডোপটেস্টো রিপোর্ট: স্পিডবোটের চালক শাহ আলম মাদকাসক্তচাঁদপুরে ঐতিহাসিক বড় মসজিদে লক্ষাধিক মুসল্লির সালাতে ‘জুমাতুল বিদা’ রাঙামাটিতে ডিবির অভিযানে ইয়াবাসহ দুই চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী আটক! আনসার ব্যাটালিয়ান সদস্যদের সঙ্গে স্থানীয়দের সংঘর্ষ : নারীসহ ৯জন আহত

  • আজ ২৫শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সুমন-সুজন নামে বাড়িটি ভাড়া নেয় ‘জঙ্গিরা’

৭:২৩ অপরাহ্ন | সোমবার, এপ্রিল ২৯, ২০১৯ আলোচিত বাংলাদেশ

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা :: রাজধানীর বসিলা মেট্রো হাউজিং এলাকার জঙ্গি আস্তানায় অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করেছেন র‍্যাব-২ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল আশিক বিল্লাহ। দীর্ঘ ১৪ ঘণ্টা ধরে পরিচালিত এই অভিযানে জঙ্গি আস্তানা থেকে ২টি মরদেহসহ ২টি বিদেশি পিস্তল ও ৪টি অবিস্ফোরিত আইডি উদ্ধার করা হয়েছে।

বিকেল ৪টার দিকে এ অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়। আস্তানা থেকে আলামত সংগ্রহ ও দুজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তাদের মরদেহ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে মোহাম্মদপুরের বসিলার মেট্রো হাউজিংয়ের বাড়ির একটি কক্ষ সুমন ও সুজন নামে ১৫০০ টাকায় ভাড়া নিয়েছিল ‘জঙ্গিরা’। তাদের একজন নিজেকে বেসরকারি চাকরিজীবী ও আরেকজন ভ্যানচালক হিসেবে পরিচয় দিয়েছিল।

বাসাভাড়া নেয়ার সময় বাড়ির কেয়ারটেকার সোহাগ তাদের জানিয়েছিল, বাসায় ব্যাচেলর ভাড়া দেয়া হবে না। তখন তারা দু’জন জানায় তারা ব্যাচেলর না। সঙ্গে তাদের স্ত্রীও থাকবে। তবে বাসা ভাড়া নেয়ার সময় ডিএমপির নিয়ম অনুযায়ী কোন কাগজপত্র তারা জমা দেননি তারা।

র‌্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন) কর্ণেল জাহাঙ্গীর আলম এসব তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, আমরা বাসার কেয়ার কেয়ারটেকার সোহাগকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছি। সে জানিয়েছে, সুমন-সুজন পরিচয়ে প্রায় এক থেকে দেড়মাস আগে বাসা ভাড়া নিলেও তারা দু’জনের কেউই নিয়মিত ওই বাসায় থাকতেন না।

তারা মাঝেমধ্যে এখানে থাকতেন। গত তিনদিন আগে থেকে তারা নিয়মিত এখানে থাকছিলেন।

এডিজি জাহাঙ্গীর আরো বলেন, আমরা ওই দু’জনের আসল পরিচয় জানার চেষ্টা করছি। অনুসন্ধান শেষে পরবর্তীতে এ বিষয়ে আরো বিস্তারিত জানানো যাবে।

এদিকে সোমবার বিকাল সোয়া ৪টার দিকে ঘটনাস্থলে জঙ্গিদের পরিচয় নিশ্চিতকরণ প্রক্রিয়া সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হলে অধিনায়ক লে. কর্নেল আশিক বিল্লাহ সাংবাদিকদের জানান, আসলে বিস্ফোরণে দুই জঙ্গির হাতের সব কয়টি আঙুল পুরোপুরিভাবে পুড়ে গেছে। যে কারণে তাদের পরিচয় বের করার জন্য ফিঙ্গারপ্রিন্ট সংগ্রহ করা সম্ভব হয়নি। ভিন্ন পন্থায় এখন তাদের পরিচয় শনাক্ত করার চেষ্টা করছি।

দুই জঙ্গির সঙ্গে অন্য কোনো গোষ্ঠীর যোগাযোগ ছিল কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, তাদের সঙ্গে কারও যোগাযোগ ছিল কি না তা জানার আগে তাদের পরিচয় নিশ্চিত হতে হবে। সিআইডির ফরেনসিক টিম মরদেহের ভিসেরা ও নমুনা সংগ্রহ করেছে। পরীক্ষার পর তাদের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যাবে। এরপর জানা যাবে তাদের সঙ্গে কোনো গোষ্ঠীর যোগাযোগ ছিল কি না।