🕓 সংবাদ শিরোনাম

 সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে হেনস্তা করায়  ‘মিডিয়া এডুকেটরস নেটওয়ার্ক’ এর প্রতিবাদসাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে হেনস্তা ও গ্রেফতারের প্রতিবাদে আমিরাতে সাংবাদিকদের প্রতিবাদ সভারোজিনার সঙ্গে যারা অন্যায় করেছে, তাঁদের জেলে পাঠান: ডা. জাফরুল্লাহকেরানীগঞ্জে ফ্ল্যাট থেকে যুবতীর অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধারপাটগ্রাম সীমান্তে অবৈধভাবে অনুপ্রবেশের দায়ে নারী ও শিশুসহ ২৪জন আটকসাংবাদিকদের ভয় দেখিয়ে সরকার গণমাধ্যমের কণ্ঠরোধ করতে চায়: ভিপি নুরসাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মামলা নয়, দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিন: হানিফআর এমন ভুল হবে না: নোবেলস্বেচ্ছায় কারাবরণের আবেদন নিয়ে থানায় অনুসন্ধানী সাংবাদিকেরাইসরায়েলি আগ্রাসনের প্রতিবাদে রাস্তায় ঢাবি শিক্ষক সমিতি

  • আজ বুধবার, ৫ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ ৷ ১৯ মে, ২০২১ ৷

প্রধানমন্ত্রীকে ‘আমার নেত্রী’ বললেন বিএনপির হারুন


❏ সোমবার, এপ্রিল ২৯, ২০১৯ আলোচিত বাংলাদেশ

সময়ের কন্ঠস্বর ডেস্ক: শপথনেবার পর জাতীয় সংসদের অধিবেশনে যোগ দিয়ে দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুবিচার দাবি করেছেন বিএনপির সংসদ সদস্য চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনের মো. হারুনুর রশীদ।

সেই সাথে সংসদে বক্তব্য দিতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী সভাপতি শেখ হাসিনাকে ‘আমার নেত্রী’ বলেও সম্বোধন করেন তিনি।

সোমবার (২৯ এপ্রিল) জাতীয় সংসদের প্রবীণ সংসদ সদস্য তোফায়েল আহমেদ কার্যপ্রণালী বিধির ১৪৭ বিধির আওতায় একটি প্রস্তাব উত্থাপন করেন। সেই আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রস্তাবে বলা হয়, ‘বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের মসজিদ, শ্রীলঙ্কার গীর্জা ও হোটেলে সন্ত্রাসী হামলায় বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও বাংলাদেশে ফেনীর সোনাগাজীতে মাদরাসাছাত্রী নুসরাতকে যৌন নিপীড়ন ও পুড়িয়ে মারার ঘটনায় গভীর ঘৃণা ও ক্ষোভ প্রকাশ করছে এবং এ সকল সন্ত্রাসী, যৌন নিপীড়নের ঘটনার বিরুদ্ধে বাংলাদেশসহ বিশ্বের সকল দেশের সংসদ, সরকার ও নাগরিকদের প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহ্বান জানাচ্ছে।’

সংসদে বিএনপির সংসদ সদস্য মো. হারুনুর রশীদ বলেন, অনেক কষ্ট করতে হয়েছে। সারাদেশের মানুষ আজ বিক্ষুব্ধ, অসন্তুষ্ট। জনগণের ভোটের মধ্য দিয়ে সরকার গঠিত হোক এটাই মুক্তিযুদ্ধের চেতনা। জনগণ চায় একটি ভোটের মধ্য দিয়ে সরকার গঠিত হোক। দেশে আইনের শাসন থাকবে, সুশাসন থাকবে। জনগণের প্রতিনিধির দ্বারা দেশ শাসিত হবে -এটি এ দেশের মানুষ প্রত্যাশা করে।

তিনি বলেন, সংসদ নেতা অনেক ক্ষেত্রে সাফল্য অর্জন করেছেন। আমি আশা করব, আজ আমরা (বিএনপি) সংসদে প্রথম এসেছি, এত তাড়াতাড়ি অস্থির হয়েন না। আমি আপনাদের কাছে আহ্বান জানাব, বাস্তব অবস্থায় দেশের যে সংকট সেই সংকট সমাধানের জন্য আমার নেত্রীকে (শেখ হাসিনা) আমি অনুরোধ করব, এ বিষয়ে আপনি দ্রুত কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। অহংকার আর দাম্ভিকতা না দেখিয়ে প্রকৃতপক্ষে দেশে যে সংকট চলছে- তা সমাধানের জন্য আমার নেত্রীকে (শেখ হাসিনা) অনুরোধ করব। অনুরোধ করব সংসদ নেতাকে, এ বিষয়ে দ্রুত কার্যকর পদক্ষেপ নেবেন।

তিনি আরও বলেন, যাই বলেন না কেন, সারাদেশের মানুষ তাকিয়ে আছেন। আমরা সংখ্যায় কম হতে পারি। বাস্তবতা হচ্ছে দেশের ১৭ কোটি মানুষ আজকে জিম্মি, অসহায়।

মানুষের গণতান্ত্রিক অধিককার হরণ করা হয়েছে। সাম্প্রতিক সময় যে উপজেলা নির্বাচন হয়েছে সমস্ত রাজনৈতিক দল তা বর্জন করেছে। আপনারা একাধিক প্রার্থী দিয়েছেন। আপনারা বিরোধী প্রার্থী দিয়েছেন। তারপরও সেখানে ৫ শতাংশ মানুষও ভোট দেয়নি। মানুষ কী অবস্থায় আছে- এটা নিশ্চয় আপনাদের উপলব্ধিতে আসা উচিত। এ সংকট থেকে যত দ্রুত আমরা বেরিয়ে আসতে পারব, ততই আমাদের জন্য মঙ্গলজনক হবে, কল্যাণকর হবে।

বিএনপির এ সংসদ সদস্য বলেন, মাননীয় নেত্রীকে বলতে চাই। আজকে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া নিম্ন আদালতের ফরমায়েশি রায়ে সাজাপ্রাপ্ত। উনি (খালেদা জিয়া) দীর্ঘ ১৫ মাস যাবৎ উচ্চ আদালতে জামিনের জন্য প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। বাংলাদেশে নিম্ন আদালত থেকে অত্যন্ত জঘন্যতম মামলা- খুন, হত্যা, ধর্ষণের মামলায় সাজাপ্রাপ্ত হয়ে উচ্চ আদালতে জামিন নিয়ে আসছে।

তিনি বলেন, সংসদ নেতার প্রতি বিশেষভাবে অনুরোধ করব। ৭৩-৭৪ বছর বয়স্ক বৃদ্ধা। উনি হুইল চেয়ারে চলাফেরা করছেন। এ অবস্থায় তার সত্যিকার অর্থে জেলখানায় থাকার কথা নয়। অন্ততপক্ষে উনার জামিন পাওয়া উচিত। উচ্চ আদালতে যদি আপনারা স্বাধীনভাবে কাজ করতে দেন। আপনার যারা অ্যাটর্নি জেনারেল-সরকারি কর্মকর্তারা আছেন তারা যদি সত্যিকার অর্থে বাধা প্রদান না করেন তাহলে আমি বিশ্বাস করি উনি কালকেই জামিন পাবেন। উনি কালকেই জামিন পাবেন।

হারুনুর রশীদ বলেন, আমরা প্রত্যাশ্য করব, সত্যিকার অর্থে এ দেশে গণতান্ত্রিক অধিকার ফিরিয়ে আনার জন্য বিএনপিকে বাদ দিয়ে আওয়ামী লীগ, আওয়ামী লীগকে বাদ দিয়ে বিএনপি। এভাবে দেশে শান্তি ফিরে আসবে না। আপনাকে ঐক্যবদ্ধভাবে দেশকে এগিয়ে নেয়ার জন্য কাজ করতে হবে। দেশে উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড হচ্ছে। কিন্তু দেশে ব্যাপক ও ভয়াবহ লুটাপাট হচ্ছে। এই লুটপাটের বিরুদ্ধে সঠিকভাবে ব্যবস্থা নেয়া হলে দেশ আরও এগিয়ে যাবে।

তিনি বলেন, আমরা বিরোধীদলের কয়েকজন সদস্য সংসদে এসেছি সত্যিকারের কথাগুলো বলতে।