টাইগারদের নাম শুনেই সবাই ভয় পায়: প্রধানমন্ত্রী


❏ মঙ্গলবার, এপ্রিল ৩০, ২০১৯ খেলা

স্পোর্টস আপডেট ডেস্ক- বিশ্বকাপ যাত্রার আগে অনুপ্রেরণা এবং আত্মবিশ্বাসের সঞ্চয় বাড়াতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল। আজ দুপুর সাড়ে ১২টায় গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করার জন্য পৌঁছান ক্রিকেটাররা।

মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে এ সাক্ষাৎ পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের সঙ্গে এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনসহ বিসিবির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

এসময় প্রধানমন্ত্রী মাশরাফি, সাকিব, মুশফিকদের সঙ্গে খোশগল্পে মেতে উঠেন, দেন নানা পরামর্শ। প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের ক্রিকেট টিমের নাম শুনে সবাই এখন ভয় পায়। টাইগারদের এখন সবাই হিসেব করে চলে।

ক্রিকেটারদের উদ্দেশে তিনি বলেন, তোমরা কোনো চাপ রাখবে না। তোমরা নিজেদের ওপর আত্মবিশ্বাস রেখে খেলবে। সবসময় মনে করবে-আমরা জিতবো। হারলেও আত্মবিশ্বাস রাখতে হবে। কারণ আত্মবিশ্বাস হচ্ছে সবচেয়ে বড় জিনিস। যত বেশি কঠিন মুহূর্ত আসবে, তত বেশি ঠান্ডা হবে। দুই একটা ম্যাচ হারলে অনেকে সমালোচনা করবেই। তারা সমালোচনা করুক।

প্রধানমন্ত্রী ক্রিকেটারদের দেখে-শুনে, বুঝে খেলার পরামর্শ দেন। তিনি পর পর দুই-তিনটা ছক্কা না মারার পরামর্শও দেন ক্রিকেটারদের।

এবার নতুন বিবাহিতরা ভালো খেলবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন শেখ হাসিনা।

বিসিবি, কোচ ও সংশ্লিষ্টদের উদ্দেশ্যে এসময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, ক্রিকেটারদের কোনো চাপ দেয়া যাবে না। ওদের নিজেদের মতো খেলতে দিন। ওরা আত্মবিশ্বাস নিয়ে খেললে জয় আসবেই।

দলের জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়ে ক্রিকেটারদের খেলার অবসরে যে কোনো প্রয়োজনে তাকে ফোন দেয়ার পরামর্শও দিয়েছেন শেখ হাসিনা। আজ না হলেও কাল, একদিন না একদিন বিশ্বকাপ জিতবেই বাংলাদেশ, ক্রিকেটারদের নিজের এমন বিশ্বাসের কথাও জানান শেখ হাসিনা।

বিশ্বকাপের আগে আয়ার‍ল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। এ লক্ষ্যে আগামী ৫ মে দেশ ছেড়ে উড়াল দেবেন মাশরাফি-সাকিবরা।

এর আগে গতকাল সোমবার আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশের জার্সি উন্মোচিত হয়। মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অধিনায়ক মাশরাফির হাতে জার্সি তুলে দিয়ে এর উন্মোচন করা হয়। এর পর জার্সি গায়ে দিয়ে বিসিবি সভাপতি, পরিচালক থেকে শুরু করে বিশ্বকাপ স্কোয়াডের খেলোয়াড়রা ফটোসেশন করেন।

জার্সিটি উন্মোচন হওয়ার পর থেকে এ নিয়ে সমালোচনার ঝড় ওঠে। সবুজ এই জার্সিতে বাংলাদেশের পতাকার আদলে লালের মিশ্রণ না থাকায় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ক্ষোভ প্রকাশ করেন অনেকেই। এই জার্সির সঙ্গে পাকিস্তানের জার্সির মিল আছে দাবি করে এমন জার্সি পরিবর্তনের দাবি তোলেন সমালোচনাকারীরা। পরে তীব্র সমালোচনার মুখে তা পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নেয় বিসিবি।