ফাঁকা ক্লাসরুমে ঘনিষ্ঠ অবস্থায় শিক্ষক-শিক্ষিকা, ধরে ফেলল গ্রামবাসী!

⏱ | বুধবার, মে ১, ২০১৯ 📁 আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :: স্কুলে ছুটির দিনে প্রধান শিক্ষক ও এক শিক্ষিকার অসামাজিক কার্যকলাপ হাতেনাতে ধরেছে জনতা। ভারতের কলকাতার তেহট্ট থানার শ্রীরামপুর স্পেশাল ক্যাডার প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।

গ্রামবাসীদের অভিযোগ, আপত্তিকর অবস্থায় ওই দুজনকে দেখা যায় শ্রেণিকক্ষে। এরপরই উত্তেজনা ছড়ায় এলাকায়। গা ঢাকা দেন শিক্ষিকা। ঘটনার জেরে কয়েকশো গ্রামবাসী এবং অভিভাবক স্কুলঘরে প্রধান শিক্ষককে দুপুর বারোটা থেকে তিনটা পর্যন্ত তালাবন্দি করে বিক্ষোভ দেখায়।

গ্রামবাসীদের দাবি, বিবাহ বর্হিভূত সম্পর্কে লিপ্ত অভিযুক্ত শিক্ষককে তাদের হাতে তুলে দিতে হবে। তালাবন্দি অবস্থায় গ্রামের কয়েকজন স্থানীয় প্রবীণ ব্যক্তি স্কুল অফিসে দীর্ঘক্ষণ আলোচনা করেন। কোনও সমাধান সূত্র না মেলায় অভিযুক্ত শিক্ষককে পুলিশ উদ্ধার করে বাইরে নিয়ে যেতে গেলে জনরোষে গণপিটুনি শুরু করে উপস্থিত জনতা। জনরোষের শিকার হয় পুলিশও। কোনওরকমে পুলিশ অভিযুক্ত শিক্ষককে গাড়িতে তুলে উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। প্রধানশিক্ষকের মোটর সাইকেলটি ভেঙে গুঁড়িয়ে দেয় উত্তেজিত জনতা। উত্তেজনা সামাল দিতে গেলে ঘটনাস্থলে থাকা এক পৌরসভা ভলান্টিয়ারও জনরোষের শিকার হন।

অভিভাবকদের অভিযোগ, ঘটনার সময় স্কুলে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক এবং ওই শিক্ষিকা ছাড়া কেউই ছিলেন না। মাঝেমধ্যে এমন ঘটনা ঘটে বলে গ্রামে কানাঘুষো চলছিল। শুধু সুযোগের অপেক্ষায় ছিল গ্রামের কয়েকজন যুবক। মঙ্গলবার দুপুরে শিক্ষক-শিক্ষিকার কর্মকাণ্ড প্রকাশ্যে আসে। গ্রামবাসীদের অভিযোগ, এর আগেও অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক ও শিক্ষিকা স্কুল ঘরে ঘনিষ্ঠভাবে মেলামেশা করেছেন। স্কুল চত্বরের পরিবেশ যাতে নষ্ট না হয় সেই বিষয়ে সতর্ক করা হয়েছিল। তারপরও এদিন ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটায় গ্রামবাসীরা মেনে নিতে পারেননি।