🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ বুধবার, ২৯ বৈশাখ, ১৪২৮ ৷ ১২ মে, ২০২১ ৷

প্রবাসী ভাই দেশে আসায় স্ত্রীর কাছে যৌতুক দাবী করে স্বামী, শেষমেষ ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার!

❏ বুধবার, মে ১, ২০১৯ ঢাকা

ষ্টাফ রিপোর্টার, মাদারীপুর :: খাদিজা নামে এক গৃহবধুর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে মাদারীপুর সদর থানার পুলিশ। এই ঘটনার পর থেকেই স্বামীসহ সবাই পলতাক রয়েছে। নিহতের পরিবারের দাবী খাদিজা (১৫) কে হত্যা করে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার (১ মে) দুপুরে মাদারীপুর সদর উপজেলার মস্তফাপুর ইউনিয়নের সিকিনওহাটা এলাকায়। খাদিজা একই ইউনিয়নের বড়খালপাড় গ্রামের মজিদ মোল্লার মেয়ে।

জানা যায়, গত দেড় বছর আগে পারিবারিক ভাবে একই ইউনিয়নের সিকিনওহাটা গ্রামের রব মাতুব্বরের ছেলে সিরাজুল মাতুব্বরের (২২) সাথে বড় খালপাড় গ্রামের মজিদ মোল্লার মেয়ে খাদিজার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই বিভিন্নভাবে যৌতুকের টাকা দাবী করে আসছে। একাধিকবার তাকে লক্ষাধিক টাকা দেয়া হয়েছে। কিছুদিন আগে খাদিজার ভাই বিদেশ থেকে দেশে আসছে। সেই কারনে কয়েকদিন যাবত টাকার জন্য স্বামীসহ ননদরা মানসিক ও শারিরিকভাবে অত্যাচার করছে।

গত ৪দিন আগেই তাকে শারিরিক অত্যাচার করায় স্বামীর বাড়ী ছেড়ে বাবার বাড়ী চলে যায়। গতকাল বিকালে খাদিজার বাবার বাড়ীতে ননদের স্বামী মো. কালন গিয়ে তাকে নিয়ে আসে। এরপর বুধবার দুপুরে খাদিজার স্বামীর বাড়ীতে ঘরের বাইরে তালা মারা অবস্থায় ঘরের পিছনের বারান্দার ফ্যানের লাঠির সাথে গলায় ওড়না দিয়ে বাধা অবস্থায় খাদিজাকে উদ্ধার করা হয়। খাদিজার পরিবারের দাবি, তাকে হত্যা করে পরে ওড়না পেচিঁয়ে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে।

মাদারীপুর সদর থানার এসআই মেহেদী হাসান বলেন, আমরা ঘটনা শুনে ঘটনাস্থলে এসেছি। আমরা আসার আগেই ঝুলন্ত লাশ ওড়না কেটে নিচে নামানো হয়েছে। প্রাথমিক অবস্থায় কিছু বলা যাচ্ছে না। এটা হত্যা না আত্মহত্যা। আমরা লাশটি ময়নতদন্তের জন্য সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেছি।