বিশ্বের সবচেয়ে নোংরা ৬ জিনিস, যেগুলো ছাড়া আমাদের চলে না

⏱ | বৃহস্পতিবার, মে ২, ২০১৯ 📁 জানা-অজানা

জানা-অজানা ডেস্ক :: বিশ্বের সবচেয়ে নোংরা জিনিসের তালিকায় এগুলো রয়েছে, অথচ এগুলো ছাড়া কারো চলে না। এ তালিকার একটি হল টাকা। অথচ টাকা কিন্তু খুবই নোংরা। এমন জিনিস আরও আছে, যেগুলো খুব নোংরা। সেই কারণে জীবাণুতেও ভরা। প্রত্যেকটি জিনিসই পরিষ্কার রাখা দরকার। এসব স্পর্শ করার পর হাত না ধুলে বিপদ হতে পারে।

স্মার্টফোন
ফোন! বিশেষ করে স্মার্টফোন ছাড়া এখন জীবনই যেন প্রায় অচল। বিজ্ঞানীরা বলছেন, ব্যবহৃত স্মার্টফোন টয়লেটের চেয়েও নোংরা। কখনও কখনও নাকি টয়লেটের চেয়ে অন্তত দশগুণ ব্যাকটিরিয়া থাকে স্মার্টফোনে। হাফিংটন পোস্টের সাম্প্রতিক এক প্রতিবেদনেও বলা হয়েছে এই কথা। সুতরাং প্রত্যেকের উচিত মোবাইলে অ্যান্টিব্যাকটিরিয়াল কোটিং ব্যবহার করা কিংবা প্রতিদিন অন্তত একবার ‘অ্যান্টিব্যাকটিরিয়াল ওয়াইপস’ দিয়ে মোবাইলটি পরিষ্কার করা।

ইয়ারফোন
ইয়ারফোন বা ইয়ারবাডসের ব্যবহারও দিনদিন বাড়ছে। কিশোর-কিশোরী, তরুণ-তরুণীদের বড় একটা অংশই কানে এই ধরনের যন্ত্র লাগিয়ে গান শুনতে ভালোবাসে। অনেকে ফোনে কথাও বলে ইয়ারফোন কানে গুঁজে। এই বস্তুটিতেও কিন্তু ব্যাকটিরিয়া গিজগিজ করে। সুতরাং তা নিয়মিত পরিষ্কার করা অত্যাবশ্যক। পুরোনো টুথব্রাশ দিয়ে প্রথমে বাইরের ধুলোবালি বিদায় করে তারপর গরম পানিতে ভেজানো নরম কাপড় দিয়ে মুছে নিলেই এটি বেশ পরিষ্কার হয়ে যায়।

কম্পিউটার কি-বোর্ড এবং মাউস
কাজ থামিয়ে এক্ষুনি আপনার কম্পিউটারের কি-বোর্ড আর মাউসটা একটু দেখুন। দু’টোতেই কত ময়লা জমেছে, তা খালিচোখেই বুঝতে পারছেন তো? বিজ্ঞানীরা বলছেন, টয়লেটের চেয়ে পাঁচগুণ ব্যাকটেরিয়া থাকে কি-বোর্ড এবং মাউসে। তাই ভ্যাকুয়াম ক্লিনারের পাইপের সামনের অংশটি খুলে পাইপটি ওপরে ধরে এগুলোর ভেতরের ধুলো পরিষ্কার করা যেতে পারে। তারপর অবশ্যই অ্যান্টিব্যাকটিরিয়াল ওয়াইপস দিয়ে কি-বোর্ড আর মাউস মুছে নেওয়া উচিত।

গাড়ির স্টিয়ারিং
গাড়ির স্টিয়ারিংও প্রতিদিনই পরিষ্কার করা উচিত। কেননা, এটি ব্যাকটিরিয়ার আদর্শ ‘বিচরণভূমি’।

টুথব্রাশ
টুথব্রাশ দাঁত পরিষ্কার করে! কিন্তু টুথব্রাশকে পরিষ্কার করে কে? আসলে খুব কম মানুষই টুথব্রাশ পরিষ্কার করে। অথচ টয়লেট থেকে জীবাণু সহজেই এতে আশ্রয় নিতে পারে বলে এটা পরিষ্কার রাখা আরও বেশি দরকার।

শপিং ব্যাগ
বারবার ব্যবহার করা যায় এমন শপিং ব্যাগগুলোও পরিষ্কার না করলে সেই ব্যাগে যখন যা কিনে আনবেন, তা-ই জীবাণুযুক্ত হবে। সুতরাং শপিং ব্যাগও নিয়মিত পরিষ্কার করুন।

টাকা: টাকার চেয়ে দরকারি অথচ বিপজ্জনক জিনিস পৃথিবীতে বোধহয় দ্বিতীয়টি নেই। বিপজ্জনক! কারণ, টাকা খুব দ্রুত হাতে হাতে বিভিন্ন স্থান, বিভিন্ন পরিবেশে ঘুরে বেড়ায়। কিন্তু টাকা তো পরিষ্কার করা যাবে না, তাই পরামর্শ- টাকা ধরার পরই হাত ধুয়ে ফেলুন। নিজের ডেবিটটি কার্ড ব্যবহার করে টাকার স্পর্শ যতটা সম্ভব এড়িয়ে চলুন।