ভূঞাপুরে ড্রেজারের খাদে পড়ে প্রাণ গেল মাদ্রাসা ছাত্রীর

⏱ | বৃহস্পতিবার, মে ২, ২০১৯ 📁 ঢাকা, দেশের খবর

নিজস্ব প্রতিবেদক, সময়ের কণ্ঠস্বর- টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলায় অবৈধভাবে ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলনের ফলে সৃষ্ট খাদে পড়ে সানজিদা আক্তার সাদিয়া (৮) নামের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। বুধবার (০১ মে) বিকালে উপজেলার তাড়াই গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত সানজিদা বীর তাড়াই গ্রামের মো: শাহীন মিয়ার কন্যা এবং একই গ্রামের ‘আবীরুন্নেছা রুস্তম আলী নূরানী হাফিজিয়া মাদরাসা’র দ্বিতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল।

নিহতের চাচাসহ এলাকাবাসী জানায়, দুপুরের দিকে সাদিয়া বাড়ির পাশের যমুনা নদীতে গোসল করতে গিয়ে বালু উত্তোলন করা বাংলা ড্রেজারের গর্তে পড়ে আর উঠতে পারেনি। পরে বিকালে স্থানীয়রা তাকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ভূঞাপুর থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ রাশেদুল ইসলাম সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, এ ঘটনায় ভূঞাপুর থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।

উল্লেখ্য, দীর্ঘদিন ধরে তাড়াই গ্রামের মো: সুজা ওই এলাকার উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া যমুনা নদীতে শ্যালো মেশিন, ড্রেজার দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে আসছেন। এতে ভাঙনের কবলে পড়ে বিলীন হচ্ছে ফসলি জমি, রাস্তাঘাট ও বসতভিটা।

এর আগে ড্রেজারের গর্তে পড়ে একই এলাকায় (তাড়াই-বলরামপুরে) ২ জন মারা গেলেও এখন পর্যন্ত বন্ধ হয়নি অবৈধভাবে বালু উত্তোলন। সরকারী অনুমোদন ছাড়া স্থানীয় প্রশাসনকে ম্যানেজ করে বালি উত্তোলন করছে বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর।

এদিকে শুধু তাড়াই গ্রামেই নয় এই ভূঞাপুর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অবৈধভাবে ড্রেজার বসিয়ে বালু উত্তোলন করে স্থানীয় কতিপয় ব্যক্তি রমরমা ব্যবসা চালিয়ে আসছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

এতে নদী ভাঙনসহ ঘটছে নানা দুর্ঘটনা। এছাড়া যমুনা নদী থেকে বালু উত্তোলনের মহোৎসবে হুমকির মুখে পড়েছে এশিয়ার অন্যতম দীর্ঘ ‘বঙ্গবন্ধু সেতু’।

বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্বপাড়ে যমুনার উত্তর ও দক্ষিণ পাশে ভূঞাপুর ও কালিহাতী অংশে স্থানীয় বালু ব্যবসায়ীরা পৃথক পৃথক সিন্ডিকেট গড়ে তুলেছে। দেদারসে চালাচ্ছে ড্রেজার মেশিন বসিয়ে অবাধে বালু উত্তোলন।