🕓 সংবাদ শিরোনাম

ফ্রান্সের জাতীয় দলে ফিরছেন ”বেনজেমা”কর্ণফুলী থানার পাশেই ছুরিকাঘাতে যুবক খুন সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে হেনস্তা করায়  ‘মিডিয়া এডুকেটরস নেটওয়ার্ক’ এর প্রতিবাদসাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে হেনস্তা ও গ্রেফতারের প্রতিবাদে আমিরাতে সাংবাদিকদের প্রতিবাদ সভাকক্সবাজারে বিপুল সিগারেটসহ ৩ যুবক আটকরোজিনার সঙ্গে যারা অন্যায় করেছে, তাঁদের জেলে পাঠান: ডা. জাফরুল্লাহকেরানীগঞ্জে ফ্ল্যাট থেকে যুবতীর অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধারপাটগ্রাম সীমান্তে অবৈধভাবে অনুপ্রবেশের দায়ে নারী ও শিশুসহ ২৪জন আটকসাংবাদিকদের ভয় দেখিয়ে সরকার গণমাধ্যমের কণ্ঠরোধ করতে চায়: ভিপি নুরসাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মামলা নয়, দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিন: হানিফ

  • আজ বুধবার, ৫ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ ৷ ১৯ মে, ২০২১ ৷

চলছে ‘লোন উলফ’ হামলার প্রস্তুতি, নিশানায় বাংলাদেশের তিন বিশিষ্ট ব্যক্তি!


❏ বৃহস্পতিবার, মে ২, ২০১৯ আলোচিত

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক :: ফের নাশকতার ছক কষছে জঙ্গিরা। এবার ভারত ও বাংলাদেশে 'লোন উলফ' হামলার পরিকল্পনা তাদের। জঙ্গিদের প্রপাগান্ডা চ্যানেল বালাকোট মিডিয়া থেকে প্রকাশিত বাংলা ভাষায় লেখা একটি ম্যাগাজিনে এই হামলার বিষয়ে বিস্তারিত উল্লেখ করা হয়েছে।

জানা গেছে, ভারতকে নিশানা করার পাশাপশি বাংলাদেশে একাত্তরের 'ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি'র সভাপতি শাহরিয়ার কবির ও বিশিষ্ট ইতিহাসবিদ অধ্যাপক মুনতাসির মামুন-সহ প্রাক্তন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের একজন উপদেষ্টাকেও টার্গেটে রেখেছে জঙ্গিরা। এ খবর কলকাতার বাংলা সংবাদপত্র সংবাদপ্রতিদিনের। এই হুমকিকে কেন্দ্র করে বাংলাদেশের নিরাপত্তা বাহিনী রাজধানী ঢাকা-সহ গোটা দেশে সতর্কতা জারি করেছে। রাজধানী ঢাকায় শুরু হয়েছে তল্লাশি অভিযানও।

গোয়েন্দা সূত্রে জানা গেছে, ওই ম্যাগাজিনে লোন উলফ হামলা কী করে করতে হয়, যোগাযোগের কৌশল, সিসিটিভি ক্যামেরা এড়িয়ে চলা, নিশানা বেছে নেওয়া, যাতায়াতের কৌশল, রেকি করার পদ্ধতি, অপারেশনের পরিকল্পনা, কী করা যাবে আর কী করা যাবে না, প্রয়োজনে টিম সিলেকশন এই কৌশলগুলো বিস্তারিত উল্লেখ করেছে।

'লোন উলফ' মানে একাকী শিকারি। লোন উলফ হামলার হুমকি দেওয়া ওই ম্যাগাজিনে 'আমাদের টার্গেট' শিরোনামের একটি অধ্যায়ে বাংলাদেশ ও ভারতের কাদের উপর হামলা করা যেতে পারে তার কিছু নমুনা দেওয়া হয়েছে। ওই নমুনায় বলা হয়েছে, আমেরিকা, ইজরায়েল, ব্রিটেন, ফ্রান্স ও ন্যাটো জোটভুক্ত দেশের (তুরস্ক বাদে) যে কোনও অমুসলিম বা উঁচু পদের কেউ।

জঙ্গিদের ওই ম্যাগাজিনে আরও বলা হয়েছে যে ভারতীয় সেনাবাহিনীর যে কোনও সদস্য, পুলিশ, সিআরপিএফ বা ইন্টেলিজেন্স ব্রাঞ্চের কোনও সদস্য, হিন্দু নেতা, বিএসএফ, ভারতের কোনও 'শাতিম' (প্রকাশ্য নাস্তিক) কিংবা প্রকাশক কিংবা বাংলাদেশ থেকে পালিয়ে যাওয়া কোনও নাস্তিকও টার্গেট হতে পারে।

সব মিলিয়ে ভারত ও বাংলাদেশকে রক্তাক্ত করতে উঠে পড়ে লেগেছে জেহাদিরা। সদ্য আবু মোহাম্মদ আল বাঙালি নামের একজনকে পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের 'আমির' নিযুক্ত করেছে আইএস। এবং আবারও বড়সড় হামলার হুঁশিয়ারি দিল সংগঠনটি।