• আজ বৃহস্পতিবার, ৩০ বৈশাখ, ১৪২৮ ৷ ১৩ মে, ২০২১ ৷

ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’ মোকাবেলায় সরকারের কোনো প্রস্তুতি নেই: রিজভী


❏ বৃহস্পতিবার, মে ২, ২০১৯ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, এক প্রলয়ঙ্করী দুর্যোগের আলামত সুস্পষ্ট হলেও সরকার তা মোকাবেলা করতে কোনো প্রস্তুতি গ্রহণ করেনি। তাই এ মুহূর্তে সবাইকে পূর্ণ সতর্ক হতে হবে।

বৃহস্পতিবার নয়াপল্টনের বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিপর্যয় মোকাবেলায় প্রস্তুতি নেয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, সব উপকূল অঞ্চলের গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা, বিমান, তেল রিজার্ভার, বিদ্যুৎকেন্দ্র, ঘূর্ণিঝড় আশ্রয়কেন্দ্র নিরাপদ করার এখনই সময়।

রিজভী বলেন, অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড়ের তীব্রতা নিয়ে সুপার সাইক্লোনে পরিণত হচ্ছে সামুদ্রিক ঘূর্ণিঝড় ফণী। আবহাওয়াবিদরা বলছেন, বাংলাদেশের উপকূল থেকে ফণীর দূরত্ব ধীরে ধীরে কমে আসছে। ফণীর আকার বাংলাদেশের আয়তনের চেয়েও বড়। উপকূলে উঠে আসার সময় ফণীর গতি হতে পারে ঘণ্টায় ২১০ কিলোমিটারের বেশি। বাংলাদেশের খুলনা ও তৎসংলগ্ন উপকূলের দিকে ধাবিত ঘুর্ণিঝড় ফণীর প্রতিনিয়ত শক্তি বৃদ্ধি পাচ্ছে। বাংলাদেশ আশঙ্কামুক্ত নয়, বরং বিপজ্জনক চেহারা নিয়ে ফণী বাংলাদেশের উপকূলের দিকে ধেয়ে আসছে। এভাবে যদি উপকূলের দিকে ফণী ধেয়ে আসে তবে তার বিষাক্ত ফণায় অকল্পনীয় তাণ্ডবলীলা চালাবে; যা ১৯৯১ সালের ২৯ এপ্রিলের প্রলয়কাণ্ডের চেয়ে ভয়াবহ হতে পারে।

বিএনপির এ নেতা বলেন, যেকোনো বড় দুর্যোগ-দুর্বিপাক মোকাবিলায় জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কাউন্সিল আছে প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে। উনি মিটিং না করেই বিদেশ চলে গেলেন। কোনো আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা নেই। উপকূলীয় জেলা পর্যায়ে জরুরি সভা নেই। তিন বাহিনী, আইন শৃঙ্খলা বাহিনী সমূহ, গোয়েন্দা সংস্থা, কোস্টগার্ড, আনসার এদের নিয়ে কোনো সভা করা হয়নি। উদ্ধার কাজে কোনো প্রস্তুতিই গ্রহণ করা হয়নি।

এ অবস্থায় বিএনপি নেতাকর্মীদের প্রস্তুত থাকার প্রয়োজনীয়তা উল্লেখ করে রিজভী বলেন, ফণীর মতো একটি বড় দুর্যোগ মোকাবেলায় আমরা বিএনপির সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের আগাম প্রস্তুত থাকার আহ্বান জানাচ্ছি। তারা যেন সকলেই উদ্ধারকর্মীর মতো প্রস্তুত থাকে। ঝড় আঘাত হানার পূর্বেই উপকূলীয় অসহায় মানুষকে নিরাপদ স্থানে পৌঁছে দেয়ার জন্য দলের নেতাকর্মীদের আহ্বান জানাচ্ছি। তারা নিজেদের নিরাপত্তাসহ অন্যদের নিরাপত্তা বিধানে সচেষ্ট থাকবেন বলে আমরা বিশ্বাস করি।