• আজ শুক্রবার, ১৫ শ্রাবণ, ১৪২৮ ৷ ৩০ জুলাই, ২০২১ ৷

দেশে ভয়াবহ ডেঙ্গু, পরিবার নিয়ে বিদেশ ভ্রমণে স্বাস্থ্যমন্ত্রী!

jahed-malek
❏ বুধবার, জুলাই ৩১, ২০১৯ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা-  রাজধানীসহ সারাদেশে ছড়িয়ে পড়েছে অ্যাডিস মশাবাহিত ডেঙ্গু জ্বর। দেশের ৬৪টি জেলার মধ্যে ৬০টিতেই ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ১ হাজার ৩৩৫ জন ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

এছাড়া এ রোগে আক্রান্ত হয়ে মানুষের মৃত্যুর খবর আসছে প্রতিদিনই। রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ পর্যায় থেকে নির্দেশনা দেয়া হচ্ছে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা অভিযানের। ছুটি বাতিল করা হয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীদের।

কিন্তু এই অস্থিরতার মধ্যে খোঁজ নেই স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালিকের। নানা মহলে কানাঘুষা শুরু হওয়ার পর জানা গেছে তিনি দেশে নেই। পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ভ্রমণে গেছেন মালয়েশিয়ায়।

তার এই ব্যক্তিগত বিদেশ ভ্রমণ স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের একাধিক কর্মকর্তা নিশ্চিত করেছেন। তবে তার ব্যক্তিগত সহকারী জানিয়েছেন, তিনি বর্তমানে তার নির্বাচনী এলাকা মানিকগঞ্জে রয়েছেন। সেখানে তিনি বন্যার্তদের সহায়তায় কাজ করছেন। অবশ্য মানিকগঞ্জের জেলা প্রশাসক অফিস জানে না মন্ত্রী জেলায় আছেন!

এদিকে মন্ত্রী বর্তমানে দেশে নাকি দেশের বাইরে, এ নিয়ে ধোঁয়াশা সৃষ্টি হওয়ার মাঝেই প্রকাশ পেল মন্ত্রীর ছুটিতে যাওয়ার সময়সূচি।

স্বাস্থ্যমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সচিব মো. ওয়াহাদুর রহমানের সই করা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ২৫ জুলাই তারিখের একটি সময়সূচির বিজ্ঞপ্তিতে দেখা গেছে, স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক ব্যক্তিগত সফরে ২৮ জুলাই ঢাকা থেকে কুয়ালালামপুরের উদ্দেশে রওনা করেছেন।

আগামী ৩ আগস্ট সেখান থেকে বাংলাদেশের পথে রওনা হয়ে ৪ আগস্ট হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে তার পৌঁছানোর কথা রয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও লেখা আছে, মন্ত্রীর সঙ্গে তার স্ত্রী শাবানা মালেক এবং মেয়ে সাদেকা মালেকও ওই সফরে থাকছেন। তাদের জন্য ২৭ জুলাই থেকে দ্য ওয়েস্টিন কুয়ালালামপুর হোটেলে কক্ষ বুক করাও হয়েছে।

এদিকে দেশের এই পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর নিরুদ্দেশ হওয়া কিংবা বিদেশ ভ্রমণের ঘটনায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন মহলে কঠোর সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক কর্মকর্তাও বিস্ময় প্রকাশ করে বলেন, পুরো দেশ যখন ডেঙ্গু নিয়ে অস্থিরতায় আক্রান্ত, তখন স্বাস্থ্য বিভাগের সর্বোচ্চ ব্যক্তি কী করে দেশের বাইরে যান। একইসঙ্গে তারা একে চরম অপেশাদারিত্বমূলক আচরণ বলেও মন্তব্য করেন।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন