এরশাদের আসনে ভোট শুরু

৯:৫৪ পূর্বাহ্ণ | শনিবার, অক্টোবর ৫, ২০১৯ আলোচিত

সাইফুল ইসলাম মুকুল, রংপুর প্রতিনিধি- জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মৃত্যুতে শূন্য হওয়া রংপুর-৩ (সদর) আসনের উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে।

শনিবার সকাল ৯টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়, যা একটানা চলবে বিকেল ৫টা পর্যন্ত। নির্বাচনে ১৭৫টি কেন্দ্রেই ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোট নেওয়া হচ্ছে। ভোট গ্রহনের জন্য ১৭৫ জন প্রিজাইডিং অফিসার, ১ হাজার ২৩ জন সহকারি প্রিজাইডিং অফিসার এবং ২ হাজার ৪৬ জন পোলিং অফিসার নিয়োজিত করা হয়েছে।

এই নির্বাচনে মহাজোট সমর্থিত জাতীয় পার্টির প্রার্থী রাহগীর আল মাহি সাদ এরশাদ ও বিএনপির প্রার্থী রিটা রহমানের মধ্যে দ্বি-মুখী তুমুল লড়াইয়ের আভাস পাওয়া গেছে। এদিকে ভোটের মাঠে আরোও আছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী এরশাদের ভাতিজা মোটরগাড়ি প্রতীকের আসিফ শাহরিয়ার। যা লাঙ্গল প্রার্থীর ভোটে ভাগ বসাতে পারে। এর ফলে ধানের শীষের প্রার্থী ভালো অবস্থানে রয়েছেন বলে ভোটারদের অনেকেই জানিয়েছেন। এছাড়াও এনপিপি’র শফিউল আলম আম প্রতিক, গণফ্রন্টের কাজী মাঃ শহীদুল্লাহ মাছ প্রতিক এবং খেলাফত মজলিসের তৌহিদুর রহমান মন্ডল রাজু দেয়াল ঘড়ি প্রতিক নিয়ে লড়ছেন।

বিএনপি প্রার্থী রিটা রহমানের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সমন্বয়ক ও রংপুর বিভাগীয় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক উপমন্ত্রী অধ্যক্ষ আসাদুল হাবীব দুলু মনে করেন, যেহেতু সকল ভেদাভেদ ভুলে বিএনপি নেতাকর্মীরা এবার ভোটের ময়দানে কাঁধে কাধ মিলিয়ে প্রচারণায় অংশ নেয়ায় আমাদের হারিয়ে যাওয়া এই আসনটি পুনরুদ্ধারের সম্ভবনা সৃষ্টি হয়েছে। রংপুর-৩ আসনের উপ-নির্বাচনে ভোটাররা পরিবর্তন আনতে চান। সুষ্ঠু ভোট হলে ধানের শীষের প্রার্থী রিটা রহমানকে কেউ হারাতে পারবে না। কারণ তিনি একজন বিখ্যাত রাজনৈতিক পরিবারের সন্তান, অন্যদিকে উচ্চ শিক্ষিত, সৎ ও যোগ্য। তার পিতার মতোই ক্লিন ইমেজ আছে তার। সেকারণে সুষ্ঠু ভোট হলে আমাদের বিজয় নিশ্চিত হবে ইনশাআল্লাহ। যদিও তারা মনে করে নির্বাচন কমিশন, প্রশাসন মহাজোট দ্বারা প্রভাবিত। এই ভোট নিয়ে মানুষের কোন আগ্রহ নেই। তবুও তারা ভোটের মাঠে থাকবেন। জনগনকে ভোট চুরির প্রক্রিয়া অবহিত করবেন। তাই সরকার ও নির্বাচন কমিশন ফলাফল প্রভাবিত না করলে ধানের শীষের বিজয় নিশ্চিত।

অন্যদিকে জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতিকের প্রার্থীর নির্বাচন পরিচালনা কমিটি মনে করেন, আসনটি তাদের পার্টির প্রতিষ্ঠাতা এরশাদের । তিনি এখানে বরাবরই জয়ী হয়েছেন। তাকে মানুষ ভালবাসার ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছেন। তাঁর মৃত্যুর পর এখানে তাঁর পুত্র প্রার্থী। প্রার্থী নতুন হলেও ভোটারদের সমর্থন তার পক্ষে যাওয়ার কথা। তারাও বিপুল ভোটের ব্যবধানে লাঙ্গল প্রতিক জয়ি হবে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।

তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জাতীয় পার্টির এক নেতা দিনকালকে জানিয়েছেন, এরশাদ পরিবারের বিদ্রোহী প্রার্থী তাদের বিজয়ে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করতে পারে।

রংপুর রেঞ্জ ডিআইজি দেবদাস ভট্রাচার্য বলেছেন, ৪৯টি ঝুকিপুর্ণসহ মোট ১৭৫টি ভোটকেন্দ্রের সুষ্ঠুভাবে ভোট গ্রহনের জন্য সকল ধরনের প্রস্তুতি নিয়েছে আইনশৃঙখলা বাহিনী। সাড়ে তিন হাজার আনসার পুলিশসহ বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ছাড়াও ১৮ প্লাটুন বিজিবি ২০টি র‌্যাবের মোবাইল টিম, ২০ জন নির্বাহী ম্যাজিট্রেটের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালত এবং ৪ জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে সংক্ষিপ্ত আদালত পরিচালনার জন্য নিয়োগ করা হয়েছে। তারা সার্বক্ষণিক মাঠে কাজ করছেন।

প্রসঙ্গত: গত ১৪ জুলাই রংপুর সদর ৩ আসনের এমপি জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা সাবেক প্রেসিডেন্ট ও বিরোধী দলীয় নেতা হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মৃত্যুর পর ১৬ জুলাই আসনটি শুন্য ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। আজ শনিবার এই আসনে ভোট অনুষ্ঠিত হবে। রংপুর সদর উপজেলার ৫ টি ইউনিয়ন এবং রংপুর সিটি করপোরেশনের ৯ থেকে ৩৩ নং ওয়ার্ডের এই সংসদীয় আসনে মোট ভোটার আছেন ৪ লাখ ৪১ হাজার ২২৪ জন। এরমধ্যে পুরুষ ২ লাখ ২০ হাজার ৮২৩ এবং নারী ভোটার ২ লাখ ২০ হাজার ৪০১ জন।