সংবাদ শিরোনাম

১৯৬৭ সালের সীমান্ত অনুযায়ী স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র চায় বাংলাদেশ | রোহিঙ্গা গণহত্যা মামলা লড়তে গাম্বিয়াকে ৫ লাখ ডলার দিয়েছে বাংলাদেশ | মির্জাপুরে মাটি উত্তোলনের দায়ে ব্যবসায়ীকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা | ঝালকাঠিতে হত্যা মামলায় স্কুল শিক্ষিকাসহ গ্রেপ্তার ২ | সিলেট জাপায় শতাধিক নেতাকর্মীর যোগদান | পঞ্চগড় পৌরসভায় আ.লীগের মনোনয়ন পেলেন জাকিয়া খাতুন | মানিকগঞ্জ পৌর নির্বাচনে নৌকা প্রতীক পেলেন সাবেক মেয়র রমজান আলী | চিনিকল বন্ধের ঘোষণা বাতিলসহ ৪ দফা দাবিতে শ্রমিকদের মানববন্ধন | বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের বিরোধিতাকারীদের শাস্তির দাবিতে ঠাকুরগাঁওয়ে মানববন্ধন | একটু জোরে ধাক্কা দিলে সরকার ক্ষমতা থেকে পড়ে যাবে: ডা. জাফরুল্লাহ |

  • আজ ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

কেবল একটি মসজিদ না, অস্তিত্বের জন্যই লড়ছি: মুসলিম আইনজীবী

১:৩৮ অপরাহ্ন | শনিবার, নভেম্বর ৯, ২০১৯ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- ১৫০ বছর ধরে চলে আসা বাবরি মসজিদের বিরোধপূর্ণ এলাকা নিয়ে মামলার ঐতিহাসিক রায় ঘোষণা করেছে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট। শনিবার (৯ নভেম্বর) ভারতের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের নেতৃত্বে পাঁচ বিচারপতির একটি বেঞ্চ স্থানীয় সময় সকাল ১১টায় এই রায় ঘোষণা করেছে।

ওই রায়ে বলা হয়েছে, বিরোধপূর্ণ জমি একটি ট্রাস্টের অধীনে হিন্দুদের মালিকানায় থাকবে। অন্যত্র সমপরিমাণ (৫ একর) জমি মুসলিমদের দেওয়া হবে।

রায়ের পর সুপ্রিম কোর্টর আইনজীবী ও সুন্নি কেন্দ্রীয় ওয়াকফ বোর্ডের প্রতিনিধি জাফরইয়াব জিলানি বলেছেন, আজকের রায়ে আমরা অসন্তুষ্ট। পরবর্তী করণীয় নিয়ে আমরা আলোচনা করবো। আমরা পুরো রায় পড়বো। তারপর সিদ্ধান্ত নেব রিভিউয়ের আবেদন করবো কিনা।

তিনি বলেন, কেবল একটি মসজিদ না, আমাদের ভবিষ্যতের জন্য লড়াই করে যাচ্ছি আমরা।

রায়ের আগে হাফিংটন পোস্ট ইন্ডিয়াকে তিনি বলেন, আমরা আইনের শাসন ও গণতন্ত্রের জন্য লড়াই করছি। কেবল একটি মসজিদের জন্যই না।

জিলানি আরও জানান, যদি আমরা আত্মসমর্পণ করি, তবে দেশের কোনো মসজিদই নিরাপদ থাকবে না, কোনো সংখ্যালঘুই নিরাপদ বোধ করবেন না। কাজেই আমাদের লড়াই কেবল এক টুকরো জমির জন্যই না বলে জানালেন লাখনৌর এই আইনজীবী।

হিন্দুদের বিশ্বাস, একটি মন্দির ধ্বংস করে চারশ ৬০ বছরের পুরনো মসজিদটি নির্মাণ করা হয়েছিল। এএফপির খবরে বলা হয়েছে, ভারতের হিন্দুত্ববাদী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও মসজিদ ধ্বংস করে সেখানে একটি মন্দির নির্মাণের প্রচার চালিয়েছিলেন।