সংবাদ শিরোনাম

৬ বছরের ছেলে সাহেলের প্রথম রোজা, আপ্লুত মাশরাফিকোরআন তেলাওয়াত, ইবাদতে প্রথম রোজা কেটেছে খালেদারভাঙ্গায় রাতের আঁধারে দফায় দফায় সংঘর্ষ, ভাঙচুর-লুটপাট : আহত-১৫বিয়ের প্রতিশ্রুতিতে তরুণীর সর্বস্ব কেড়ে নেওয়ার অভিযোগ স্কুল শিক্ষকের বিরুদ্ধেমহাসড়ক যানশূন্য, শিমুলিয়ায় ফেরি পারাপার বন্ধ‘তালা ভেঙ্গে মসজিদে তারাবি পড়ার চেষ্টা্’‌, পুলিশের বাধায় সংঘর্ষে মুসল্লিরা‘লঘু পাপে গুরু দণ্ড’; তিনটি মুরগি চুরির দায়ে দেড়লাখ টাকার জরিমানা চার তরুণের!কুড়িগ্রামের সবগুলো নদ-নদী শুকিয়ে গেছে, হুমকীতে জীব-বৈচিত্রহেফাজতের আরেক কেন্দ্রীয় নেতা গ্রেপ্তারমধুখালীতে বান্ধবীর সহায়তায় অচেতন করে দফায় দফায় ধর্ষণের শিকার নারী!

  • আজ ২রা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

কুমিল্লায় নিষিদ্ধ হলো তারেক মনোয়ারসহ ৩ বক্তার ওয়াজ

১:০২ অপরাহ্ন | বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৪, ২০১৯ আলোচিত বাংলাদেশ

সময়ের কণ্ঠস্বর, কুমিল্লা- দেশের জনপ্রিয় ইসালামি বক্তা ও টিভি উপস্থাপক মাওলানা তারেক মনোয়ারসহ তিন বক্তার ওয়াজ নিষিদ্ধ করেছে কুমিল্লার জেলা প্রশাসন।

গত ১১ নভেম্বর (সোমবার) কুমিল্লা জেলা আইনশৃংখলা কমিটির সভায় জেলা প্রশাসক মো. আবুল ফজল মীর এই সিদ্ধান্ত গ্রহণের কথা জানান। নিষিদ্ধের তালিকায় তারেক মনোয়ার ছাড়া আরো দুই বক্তা হলেন – আবদুর রাজ্জাক এবং জসিম উদ্দিন।

অনেক বছর ধরে ওয়াজের নামে সাধারণ মানুষকে বিভ্রান্ত করা, পক্ষে-বিপক্ষে অবস্থান নিয়ে রাজনৈতিক উসকানিমূলক বক্তব্য প্রদান এবং মুসলমানদের মধ্যে দ্বন্দ্ব সৃষ্টি করার অভিযোগ ওঠায় এই পদক্ষেপ নেন কর্মকর্তারা।

স্থানীয় প্রশাসন জানায়, এই বক্তারা ইসলামের ভুল ব্যাখ্যা উপস্থাপন করেন এবং শান্তিময় পরিবেশ নষ্ট করেন। তাদের ওয়াজে ইসলামের আদর্শ ও দেশপ্রেমের চেয়ে উগ্রবাদ প্রকাশ পায়। তাই তাদের ওয়াজ কুমিল্লায় নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

জেলা আইনশৃঙ্খখলা কমিটির সভার সভাপতি জেলা প্রশাসক মো. আবুল ফজল মীর বলেন, উল্লেখিত ওয়াজকারী বক্তারা দীর্ঘ বছর ধরে ওয়াজের নামে সাধারণ মানুষকে বিভ্রান্ত করে আসছে। তাদের ওয়াজে ইসলামের আদর্শ ও দেশ প্রেমের চেয়ে উগ্রবাদ প্রকাশ পায়। তাই তাদের ওয়াজ কুমিল্লায় নিষিদ্ধ করা হলো।

তিনি আরও বলেন, কিছু বক্তা মাফফিলে বিভ্রান্তিকর বক্তব্য দেন। বিশৃঙ্খলা ছড়াতে উসকানিমূলক কথাবার্তা বলেন। এ ধরনের বক্তাদের মাহফিলে কিছুতেই দাওয়াত দেয়া যাবে না। ইতোমধ্যেই আমরা তিনজনের তালিকা করেছি। এই তিনজনকে কোনো মাহফিলে ওয়াজ করতে দাওয়াত দেয়া যাবে না, অন্ততপক্ষে কুমিল্লায় তো নয়ই। কুমিল্লায় কিছুতেই শান্তি বিনষ্ট হতে দেয়া যাবে না। এ বিষয়ে আমরা বেশ সতর্ক।

সভায় উপস্থিত কুমিল্লার পুলিশ সুপার সৈয়দ মো. নুরুল ইসলাম বলেন, আমাদের দেশের মানুষ সহজ-সরল ও অত্যান্ত ধর্মপ্রাণ। তাদের সরলতার সুযোগ নিয়ে ধর্মীয় অনুভূতিকে কাজে লাগিয়ে কোনো কোনো বক্তা ইসলামের ভুল ব্যাখ্যা উপস্থাপন করেন এবং শান্তিময় পরিবেশ নষ্ট করেন। এসব ওয়াজকারীদের বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। তাই যথাযথ অনুমতি নিয়ে ওয়াজ-মাহফিলের আয়োজন করতে হবে। যেই স্থানে মাহফিল আয়োজন করা হবে সেখানে যেন অবশ্যই সাউন্ড সিস্টেমটি প্যান্ডেলের ভেতরে রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।