সংবাদ শিরোনাম

ছাত্রলীগ নেতার প্যান্ট চুরির ভিডিও ভাইরাল!পাটগ্রামে ইউএনও’র উপর হামলা, আটক ৬আগের সব রেকর্ড ভেঙ্গে একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু ৮৩ জনেরশফী হত্যা মামলা: মামুনুল-বাবুনগরীসহ ৪৩ জনকে অভিযুক্ত করে প্রতিবেদনখালেদা জিয়ার রোগমুক্তি কামনায় সারাদেশে দোয়া কর্মসূচিরোহিঙ্গা শিবিরে ফের অগ্নিকান্ডসালথায় তান্ডব: এসিল্যান্ডের বিরুদ্ধে উঠা অভিযোগের সত্যতা মিলেনিশাহজাদপুরে কৃষকদের মাঝে হারভেস্টার মেশিন বিতরণচাঁদপুরে গণমাধ্যম সপ্তাহের রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি পেতে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপিশ্রমিকদের যাতায়াতের ব্যবস্থা না করলে আইনি পদক্ষেপ : শ্রম প্রতিমন্ত্রী

  • আজ ৩০শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

আবারো লজ্জার হার বাংলাদেশের

৩:২০ অপরাহ্ন | রবিবার, নভেম্বর ২৪, ২০১৯ খেলা
ind2

স্পোর্টস আপডেট ডেস্কঃ জয় কিংবা ড্র নয়, ইনিংস হার এড়ানোটাই বড় চ্যালেঞ্জ ছিল বাংলাদেশের সামনে। তবে সেই লক্ষ্যে নিজেদের সক্ষমতা দেখাতে পারলেন না টাইগাররা। তৃতীয় দিন খেলা ১ ঘণ্টা না গড়াতেই অলআউট হলেন তারা।

টেস্টের তৃতীয় দিনের শুরুতেই ফিরে গেছেন এবাদত হোসেন। আজ রবিবার ভারতের বিপক্ষে ইনিংস পরাজয় এড়াতে মাঠে নামে বাংলাদেশ। পরাজয় এড়াতে নেমে শুরুতেই বিপর্যয়ে পড়ে বাংলাদেশ।

দিনের গোড়াপত্তন করেন আগের দিনে ৫৯ রানে অপরাজিত থাকা মুশফিকুর রহিম ও নতুন ব্যাটসম্যান এবাদত হোসেন। কোনো রান যোগ না করেই উমেশ যাদবের শিকার হন এবাদত।

এরপর ৩৯ ওভার ৩ বলে রবীন্দ্র জাদেজার হাতে ক্যাচ উঠিয়ে বিদায় নেন মুশফিকুর রহিমও। মুশফিকের পর ব্যক্তিগত ২১ রান করে ইনিং শেষ করেন আল-আমিন হোসেন। হ্যামস্ট্রিং ইনজুরির কারণে দ্বিতীয় ইনিংসে পুনরায় ব্যাট করতে নামলেন না মহমুদুল্লাহ।

রবিবার প্রথম সেশনে এক ঘণ্টারও কম সময়ের মধ্যে বাংলাদেশের বাকি তিন উইকেট তুলে নিয়ে ইনিংস জয় নিশ্চিত করল কোহলি ব্রিগেড। ৪৩ রানে বাংলাদেশের বাকি ৩ উইকেট তুলে নিয়ে ইনিংস ও ৪৬ রানে ঐতিহাসিক পিঙ্ক বল টেস্টে জয় ছিনিয়ে নিল ভারত।

ঐতিহ্যবাহী ইডেনে গোলাপি বলে দিবারাত্রির ঐতিহাসিক টেস্টের প্রথম ইনিংসে মাত্র ১০৬ রানে অলআউট হয় বাংলাদেশ। দলের ৮ ব্যাটসম্যানই ২ অংকের ঘর স্পর্শ করতে পারেননি। ০ মারেন তিন ‘ম’ মুশফিক-মুমিনুল-মিঠুন।

বাংলাদেশের প্রথম ইনিংসের জবাবে ৯ উইকেটে ৩৪৭ রানে ইনিংস ঘোষণা করে ভারত। এতে ২৪১ রানের লিড নেয় তারা। এর নেপথ্য কারিগর কোহলি। টেস্ট ক্যারিয়ারে ২৭তম সেঞ্চুরি তুলে ১৩৬ রানে থামেন তিনি।

সর্বোচ্চ ২৯ করেন সাদামান। আর রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে ফেরা লিটন করেন ২৪ রান। ভারতের হয়ে ইশান্ত নেন সর্বাধিক ৫ উইকেট। উমেশ শিকার করেন ৩ উইকেট। আর শামি পান ২ উইকেট।