‘যুবসমাজের ভ্যানগার্ড হিসেবে কাজ করবে যুবলীগের নতুন কমিটি’

৩:৫০ অপরাহ্ন | রবিবার, নভেম্বর ২৪, ২০১৯ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- স্বচ্ছ ভাবমূর্তি, শিক্ষিত ও মার্জিত মানুষের হাতে যুবলীগের নেতৃত্ব দেয়া হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

রোববার দুপুরে তথ্যমন্ত্রীর দফতরে ওমানের রাষ্ট্রদূত তাঈদ সেলিম আব্দুল্লাহ আল আলাউইর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ শেষে সমসাময়িক বিষয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফিংয়ে তিনি এ কথা বলেন। এসময় যুবলীগের নতুন কমিটি দেশের যুবসমাজের ভ্যানগার্ড হিসেবে কাজ করবে বলেও মন্তব্য করেন মন্ত্রী।

তথ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ‘যুবলীগ যিনি প্রতিষ্ঠা করেছিলেন, তার সন্তানের হাতেই এই কমিটির চেয়ারম্যানের দায়িত্ব তুলে দেওয়া হয়েছে। নতুন চেয়ারম্যান অত্যন্ত শিক্ষিত ও মার্জিত এবং উজ্জ্বল ভাবমূর্তির অধিকারী। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি সাহিত্যে অনার্স করেছেন এরপর যুক্তরাষ্ট্রের একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ালেখা করেছেন।’ দেশের যুবসমাজ একজন শিক্ষিত নেতা পেয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

মন্ত্রী বলেন, ‘যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসাবে যাকে দেওয়া হয়েছে তিনিও উজ্জ্বল ভাবমূর্তির অধিকারী। তাকে নিয়েও প্রশ্ন নেই। তাদের নেতৃত্বে যুবলীগ যুবসমাজের ভ্যানগার্ড হিসাবে নিজেদের গড়ে তুলতে পারবে।’

তথ্যমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ ও আওয়ামী লীগের পরিবার পরিচালিত হয়। সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের অনেকগুলো সম্মেলন এরইমধ্যে হয়েছে। প্রত্যেকটি সম্মেলনের মাধ্যমে যাদের হাতে নেতৃত্ব দেওয়া হয়েছে তারা সবাই স্বচ্ছ ভাবমূর্তির সৎ ও ভালো মানুষ। এর মাধ্যমে রাজনীতিকে যারা কলুষিত করতে চান এবং রাজনীতিতে দুর্বৃত্তায়নের যে প্রক্রিয়া জিয়াউর রহমান শুরু করেছিলেন, খালেদা জিয়া ও এরশাদ যেটির ষোলকলা পূর্ণ করেছিলেন, সেই চক্র থেকে বের করে এনে পরিচ্ছন্ন ভাবমূর্তির শিক্ষিত মানুষের হাতে নেতৃত্ব তুলে দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী। এটি রাজনীতি ও দেশের জন্য মঙ্গল। একইসঙ্গে অন্য দলগুলো এটি থেকে শিক্ষা নেবে বলেও আশা প্রকাশ করেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক।

বিএনপির অনেক নেতা বলেছেন তারা হরতাল-অবরোধের মতো কর্মসূচিতে যেতে চাচ্ছেন বা যাবেন, বিষয়টি সরকার কীভাবে দেখছে এবং কী প্রস্তুতি রয়েছে জানতে চাইলে তথ্যমন্ত্রী বলেন, দীর্ঘমেয়াদি হরতাল-অবরোধ মানে জনগণকে জিম্মি করার রাজনীতি। জনগণকে জিম্মি করার রাজনীতি অনুসরণ করার কারণে তারা জনবিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। রাজনীতিতো জনগণকে জিম্মি করার জন্য নয়, জনগণের কল্যাণের জন্য।