• আজ বৃহস্পতিবার, ১২ কার্তিক, ১৪২৮ ৷ ২৮ অক্টোবর, ২০২১ ৷

আবারো হাসপাতালে এটিএম শামসুজ্জামান

atm
❏ সোমবার, নভেম্বর ২৫, ২০১৯ বিনোদন

বিনোদন ডেস্কঃ বর্ষীয়ান অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামানকে আবারও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সোমবার (২৫ নভেম্বর) দুপুরে তাকে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মলত্যাগের জটিলতায় ভুগছেন এই অভিনেতা। এর আগেও একই সমস্যায় গত ২৬ এপ্রিলে ভর্তি হয়ে অস্ত্রোপচার করতে হয়েছিল তার। এরপর দীর্ঘ চিকিৎসার পর বাসায় ফেরেন এটিএম শামসুজ্জামান। এদিকে এই অভিনেতার স্বাস্থ্য প্রসঙ্গে রুনি জামান বলেন, ‘পুরনো সমস্যার কারণে তাকে আবার হাসপাতলে নেওয়া হয়েছে। গত তিন দিন ধরে পেট ব্যথা হচ্ছিল। অবস্থা খারাপ হওয়া হাসপাতালে আনা হয়। চিকিৎসকরা কিছু মেডিসিন দিয়েছেন। এগুলো কাজ না হলে আবারও অস্ত্রোপচার করতে হতে পারে।’

এ বিষয়ে এটিএম শামসুজ্জামানের ছোট ভাই সালেহ জামান বলেন, আগস্ট মাসে বাসায় ফেরার পর তিনি ভালোই ছিলেন। কিন্তু চিকিৎসকের কিছু পরামর্শ সঠিকভাবে না মানায় তিনি আবারো অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। তবে এটি গুরুতর কিছু না।

বর্তমানে এটিএম শামসুজ্জামানের সঙ্গে রয়েছেন তার মেয়ে কোয়েল। তিনি বলেন, বাবার মূলত গ্যাস্ট্রিক ও মলত্যাগজনিত সমস্যা। এর আগে এই সমস্যাতেই তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। আবারো এটি শুরু হলে আজ চিকিৎসকে দেখাতে আসি। এরপর চিকিৎসকের পরামর্শেই তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। চিকিৎসক জানিয়েছেন, ভয়ের কোন কারণ নেই, দ্রুতই তিনি সুস্থ হয়ে উঠবেন।

উল্লেখ্য, ১৯৪১ সালের ১০ সেপ্টেম্বর নোয়াখালীর দৌলতপুরে এটিএম শামসুজ্জামান জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৬১ সালে উদয়ন চৌধুরীর ‘বিষকন্যা’ সিনেমায় সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজ করে ক্যারিয়ার শুরু করেন তিনি। প্রথম চিত্রনাট্যকার হিসেবে তিনি কাজ করেছেন ‘জলছবি’ সিনেমায়। এ পর্যন্ত শতাধিক চিত্রনাট্য ও কাহিনী লিখেছেন বর্ষীয়ান এ অভিনেতা।

১৯৬৫ সালে অভিনেতা হিসেবে এটিএম শামসুজ্জামানের সিনেমায় অভিষেক ঘটে। ১৯৭৬ সালে আমজাদ হোসেনের ‘নয়নমণি’ সিনেমায় খলনায়ক হিসেবে তার আত্মপ্রকাশ ঘটে। সিনেমার পাশাপাশি অসংখ্য খণ্ড নাটক ও ধারাবাহিকে অভিনয় করেছেন তিনি।

একুশে পদকপ্রাপ্ত বরেণ্য এ অভিনেতার একমাত্র পরিচালিত সিনেমা ‘এবাদত’। এখন পর্যন্ত পাঁচবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন এ কিংবদন্তি। কাজী হায়াতের ‘দায়ী কে’ সিনেমার জন্য দুটি ক্যাটাগরিতে পুরস্কার পান তিনি। এরপর ‘চুড়িওয়ালা’, ‘মন বসে না পড়ার টেবিলে’ এবং ‘চোরাবালি’ সিনেমায় অভিনয়ের জন্য একই পুরস্কার লাভ করেন এটিএম শামসুজ্জামান।