• আজ রবিবার। গ্রীষ্মকাল, ৫ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ। ১৮ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ। রাত ১০:৫৬মিঃ

মির্জাপুরে সেই স্কুলছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় চেয়ারম্যান পুত্রসহ গ্রেপ্তার ২

২:৩১ অপরাহ্ন | মঙ্গলবার, নভেম্বর ২৬, ২০১৯ ঢাকা, দেশের খবর

মো. সানোয়ার হোসেন, মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি- টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার আজগানা ইউনিয়নের বংশাই স্কুল এন্ড কলেজের সেই স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের চাঞ্চল্যকর ঘটনায় আজগানা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মো. রফিকুল ইসলাম সিকদারের ছেলেসহ ২ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

ধষর্ণের ঘটনার ৭ দিন পর আজ মঙ্গলবার (২৬ নভেম্বর) ৪ জনকে আসামী করে থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন ছাত্রীর বাবা।

এ ঘটনায় গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, উপজেলার আজগানা ইউনিয়নের বেলতৈল গ্রাম ও টাঙ্গাইল পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির পরিচালক আতিকুল ইসলাম সিকদারের ছেলে রাকিব সিকদার (২৪), আজগানা ইউপি চেয়ারম্যান মো. রফিকুল ইসলাম সিকদারের ছেলে মো. সোহান সিকদার (২২)।

এ ঘটনার পর বেলতৈল গ্রামের ইয়াকুব সিকদারের ছেলে জসিম সিকদার (২৫) ও জসিম সিকদারের স্ত্রী বিলকিছ বেগম (২০) পলাতক রয়েছে বলে জানা গেছে।

মামলার তদন্তভার জেলা ডিবি (দক্ষিণ) কে দেয়া হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন মির্জাপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. মোশাররফ হোসেন।

এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে আজগানা ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম সিকদার ও তার ভাই বংশাই স্কুল এন্ড কলেজ পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি আতিকুল ইসলাম সিকদারকে নেয়া হয়েছে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, বুধবার (২০ নভেম্বর) সকালে ওই স্কুল ছাত্রী প্রাইভেট পড়তে যাওয়ার পথে সোহান সিকদার ও জসিম সিকদারের সহযোগীতায় জসিমদের বাড়িতে নিয়ে যায় রাকিব সিকদার। এরপর সেখানে জসিমের স্ত্রী বিলকিছের সহায়তায় ওই স্কুল ছাত্রীকে নেশা জাতীয় দ্রব্য খাইয়ে ধর্ষণ করে। এতে ওই স্কুল ছাত্রী অচেতন হয়ে পড়লে ঘটনাস্থল থেকে সটকে পড়ে সবাই।

ধর্ষণকারীরা প্রভাবশালী হওয়ায় হুমকির মুখে মেয়ের পরিবার মুখ খুলতে না পেরে এবং তাদের ভয়ে আত্মগোপন করে কালিয়াকৈর উপজেলার ফুলবাড়িয়া এলাকায় আশ্রয় নেয়। পরে ৭ দিন পর থানায় মামলা দায়ের করেন মেয়েটির পরিবার।

এ বিষয়ে মির্জাপুর থানা অফিসার ইনচার্জ মো. সায়েদুর রহমান জানান, এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে। এ পর্যন্ত দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে এবং অপর দু’জনকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।