‘নুরের ওপর হামলায় ছাত্রলীগের কেউ জড়িত থাকলে ব্যবস্থা’- লেখক

lekh
❏ সোমবার, ডিসেম্বর ২৩, ২০১৯ আলোচিত বাংলাদেশ

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ডাকসু ভবনে ভিপি নুরের উপর হামলার সঙ্গে ছাত্রলীগের কেউ জড়িত থাকলে তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য।সোমবার (২৩ ডিসেম্বর) এ কথা জানান তিনি।

ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, সভাপতি ও আমি নিজস্ব তদন্ত করছি। এতে ছাত্রলীগের কারো জড়িত থাকার প্রমাণ পেলে তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ডাকসু ভিপির উপর এমন হামলা বেদনাদায়ক উল্লেখ করে লেখক ভট্টাচার্য বলেন, ক্যাম্পাসে এমন হামলার ঘটনা অনাকাঙিক্ষত।

এসময় কারণ ছাড়াই ছাত্রলীগকে এই ঘটনার সঙ্গে জড়ানো হচ্ছে বলে দাবি করে তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ ও ছাত্রলীগের কিছু অতি উৎসাহী এই ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে। এসবের প্রমাণ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

লেখক ভট্টাচার্য বলেন, ডাকসুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে অনেকেই ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা করছে। ফলে নেতাকর্মীদেরকে এদের বিষয়ে সচেতন থাকতে হবে। কেউ যদি ক্যাম্পাস অস্থিতিশীল করতে চায় তাদেরকে ছাড় দেয়া হবে না বলেও হুশিয়ারি প্রকাশ করেন তিনি।

এর আগে রোববার দুপুর পৌনে ১টার দিকে ডাকসু ভবনের নিজ কক্ষে হামলার শিকার হন ভিপি নুর। তাণ্ডবের ঘটনাটির কয়েকটি ভিডিও ইতিমধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে।

যেখানে দেখা গেছে, হামলা-ভাঙচুরে ভিপি নুরসহ আটজন আহত হয়েছেন। হামলার পর আহত ডাকসু ভিপি নুরুল হক অজ্ঞান অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা গেছে। এছাড়া ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম-আহবায়ক রাশেদ খান, ফারুক হোসেনসহ অন্যদের সাহায্য চেয়ে আকুতি জানাতে দেখা গিয়েছে।

ভিডিওতে বাংলাদেশে সাধারণ ছাত্র অধিকার পরিষদ নেতা রাশেদ খানকে বলতে শোনা গেছে, ‘শাহবাগ থানা-পুলিশের সাহায্য কামনা করছি। এখানে আমাদের সবার অবস্থা খারাপ।’

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ডাকসু ভবনের মূল ফটক বন্ধ করে নুরের ওপর লাঠিসোটা নিয়ে হামলা করা হয়। এছাড়া বাইরে থেকেও মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের নেতাকর্মীরা ইটপাটকেল ছোড়েন। হামলায় অন্তত ৩২ জন আহত হয়েছেন।