সংবাদ শিরোনাম
  • আজ ২৫শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে উত্তর প্রদেশ পুলিশের ‘ঘাড় ধাক্কা’

❏ রবিবার, ডিসেম্বর ২৯, ২০১৯ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- সদ্য গ্রেফতার পুলিশের সাবেক এক কর্মকর্তার সঙ্গে দেখা করতে যাওয়ার সময় কংগ্রেসনেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে বাধা দিয়েছে উত্তর প্রদেশ পুলিশ। এসময় তাকে ঘাড় ধাক্কা দেওয়া হয় বলে অভিযোগ উঠেছে।

আনন্দবাজার পত্রিকার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, লখনৌর রাস্তায় যোগী আদিত্যনাথের পুলিশের সঙ্গে সরাসরি সংঘাতে জড়ালেন প্রিয়াংকা গান্ধী।

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরোধিতার অভিযোগে অবসরপ্রাপ্ত আইপিএস অফিসারকে গ্রেফতার করেছে লখনৌ পুলিশ। প্রিয়াংকা গান্ধী শনিবার তাকে দেখতে গিয়ে বাধার মুখে পড়েন।

কিন্তু পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে দলীয় কর্মীর স্কুটারে করে ওই আইপিএস অফিসারের বাড়িতে যান প্রিয়াংকা। তবে কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াংকার অভিযোগ, পুলিশ তাকে ঘাড় ধাক্কা দিয়ে আটকানোর চেষ্টা করেছে। শুধু আটকায়নি, তার গলা টিপে ধরেছিলেন নারী পুলিশের এক কনস্টেবল। তাকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়ারও অভিযোগ করেছেন কংগ্রেস নেত্রী।

খবরে বলা হয়, সিএএ নিয়ে বিক্ষোভের সময় গ্রেফতার সাবেক আইপিএস অফিসার এসআর দারাপুরী ও দলের নেত্রী সাদাফ জাফরের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে রওনা হন প্রিয়াংকা।

কিন্তু ইন্দিরা নগরে পৌঁছনোর আগে রাস্তাতেই যোগীর পুলিশ আটকায় তাকে। প্রিয়াংকার দাবি, তিনি কোথায় যাচ্ছেন, তা জানতই না পুলিশ। তা সত্ত্বেও তার গাড়ি আটকানো হয়। এর পর রাস্তায় হাঁটতে শুরু করেন তিনি। আচমকাই দলের এক কর্মীর স্কুটারের পেছনে বসে পড়েন প্রিয়াংকা।

পুলিশ পেছনে দৌড়াতে থাকে। তাকে থামাতে হিমশিম খেয়ে যায় পুলিশ। শেষ পর্যন্ত আটকানো হয় স্কুটারটিও। দ্রুত হাঁটতে শুরু করেন প্রিয়াংকা। আটকানোর চেষ্টা করেন নারী পুলিশের কয়েক জন কর্মী। ধাক্কাধাক্কির পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়। তখনও পাশ কাটিয়ে বেরিয়ে যেতে সফল হন প্রিয়াংকা।

পর তার অভিযোগ, তাকে হেনস্তা করেছে পুলিশ। প্রিয়াংকা বলেন, ‘নারী পুলিশের এক কনস্টেবল আমার গলা টিপে ধরে আটকানোর চেষ্টা করেছিলেন। এমন ভাবে ধাক্কা দেয়া হয়েছে যে পড়ে গিয়েছিলাম।’

শেষ পর্যন্ত কয়েক কিলোমিটার হেঁটেই প্রিয়াংকা পৌঁছান সাবেক আইপিএস অফিসারের বাড়িতে। দারাপুরীর বাড়িতে গিয়ে তার অসুস্থ স্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেন তিনি।

তবে প্রিয়াঙ্কার এমন অভিযোগ অস্বীকার করে দু’টি পৃথক বিবৃতি প্রকাশ করেছে পুলিশ। দায়িত্বরত ডিএসপি অর্চনা সিং নিজ বিবৃতিতে বলেছেন, প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে বাধা দিয়ে নিজের দায়িত্ব পালন করছিলেন তিনি। কেননা প্রিয়াঙ্কা তার যাত্রাপথের পূর্বনির্ধারিত রুট থেকে সরে অন্য রাস্তা দিয়ে যাচ্ছিলেন এবং ভিআইপিরা এই কাজটি করলে রাজপথে যানজটের সৃষ্টি হয়।

উত্তরপ্রদেশ পুলিশের পক্ষ থেকে দেয়া বিবৃতিতেও একই যুক্তি দেখানো হয়েছে। এছাড়া প্রিয়াঙ্কা ঘাড় ধাক্কা দেয়া এবং মাটিতে ফেলে দেয়ার যে অভিযোগ করেছেন তা সম্পূর্ণ মিথ্যা বলে ওই বিবৃতিতে দাবি করা হয়েছে।

কিন্তু প্রিয়াঙ্কা তার অভিযোগে অনড় থেকে পুলিশের দাবি প্রত্যাখ্যান করেছেন। বলেছেন, পুলিশ কোনো কারণ না দেখিয়ে রাস্তার মাঝখানে তার পথরোধ করেছিল, এমনকি তার গায়ে হাত তুলেছিল। এর মধ্য দিয়ে শান্তিপূর্ণ একটি কর্মসূচিতে ‘ভীতু’ মোদি সরকারের নির্দেশে পুলিশ বাধা দিয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।