শিশুদের সাথে আনন্দে মেতে উঠলেন প্রধানমন্ত্রী


❏ মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ৩১, ২০১৯ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা এবং জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষার হওয়ায় মাধ্যমিকের ভয় কমেছে শিক্ষার্থীদের বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শিশুদের হাতে বই তুলে দিয়ে প্রধানমন্ত্রী তাদের নিয়ে গণভবনের মাঠে যান। এ সময় শিশুরা দুরন্ত গতিতে মাঠে প্রবেশ করে। পরে প্রধানমন্ত্রীও শিশুদের সাথে মাঠে যান ও তাদের সাথে খেলায় মেতে উঠেন।

এর আগে মঙ্গলবার (৩১ ডিসেম্বর) সকাল ১০টার দিকে গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর কাছে এ ফলাফল হস্তান্তর করেন শিক্ষামন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রী সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। নিজ হাতে ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দেয়ার পর তাদের সঙ্গে সময় কাটান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। খেলায়, গল্পে শিশুদের আনন্দে শামিল হন সরকারপ্রধান।

নতুন বছরে নতুন বই পাওয়ার আনন্দে ঝলমল করে এ ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা। তাদের এই আনন্দে শামিল হন প্রধানমন্ত্রীও তখন তা পেল ভিন্ন মাত্রা। গণভবনে শিশুদের হাতে নতুন বই তুলে দেয়ার পর তাদের সঙ্গে একান্ত সময় কাটান সরকারপ্রধান শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রীকে কাছে পেয়ে আনন্দে আত্মহারা ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা। সরকার প্রধানের সাথে ছবি তোলা, খেলা আর গল্পে ব্যস্ত সময় পার করে তারা। পরে গণভবনের মাঠে মুক্ত পাখির মতো ছুটোছুটি আর দোলনায় চড়ে সময় কাটায় শিশুরা। নিজে দাঁড়িয়ে থেকে তাদের আনন্দ উপভোগ করেন শেখ হাসিনা।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী জানান, বঙ্গবন্ধু ৩৬ হাজার প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ করেছে, ২০১৩ সালে আওয়ামী লীগ সরকার ২৬ হাজার জাতীয়করণ করেছে। শিক্ষকদের বেতন ও সম্মান বাড়িয়ে দিয়েছি। বিনামুল্যে বই দিচ্ছি, স্কুল ফিডিং চালু করেছি।

তিনি বলেন, আমরা শিশুদের খেলাধুলায় প্রত্যেক উপজেলায় মিনি স্টেডিয়াম করে দিয়েছি। বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা ফুটবল টুনামেন্ট চালু করেছি। ডিজিটাল শিক্ষা ব্যবস্থা চালু করেছি। প্রযুক্তি শিক্ষায় আগ্রহ বাড়িয়েছি। এখনকার শিশুরা আমাদের চেয়ে মেধাবী কারণ তারা প্রযুক্তি শিক্ষা পাচ্ছে। শিশুদের সৃজনশীলতা বাড়াতে সাংস্কৃতিক চচায় উৎসাহ দিচ্ছি। প্রাক প্রাথমিক শিক্ষাকে আরও আধুনিক পদ্ধতিতে এগিয়ে নিতে চাই।