• আজ মঙ্গলবার, ৪ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ ৷ ১৮ মে, ২০২১ ৷

সাপাহার থানা হেফাজতে থাকা সেই প্রতিবন্ধী রুবেল ফিরে পেলো পরিবার


❏ মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ৩১, ২০১৯ দেশের খবর, রাজশাহী

নয়ন বাবু, সাপাহার (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁ জেলা পুলিশ ও স্থানীয় সাংবাদিকদের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় প্রায় ৬দিন পর সাপাহার থানা হেফাজতে থাকা বাক ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী রুবেল ফিরে পেলো তার পরিবারকে।

গতকাল সোমবার রাত ৯টায় নওগাঁ পুলিশ সুপারের সম্মেলন কক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আবদুল মান্নান মিয়া উপস্থিত থেকে সাপাহার থানা হেফাজতে থাকা বাক ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী রুবেলকে তার বাবা সাবেক শিক্ষক তৈয়ব আলী'র জিম্মায় দেওয়া হয়। এ সময় তিনি রুবেলের চিকিৎসার জন্য তার পরিবারকে প্রয়োজনীয় সাহায়তা প্রদানের আশ্বাস দেন।

সাপাহার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল হাই জানান, গত ২৪ ডিসেম্বর রাত সাড়ে ১০ টায় সাপাহার উপজেলার আইহাই ইউনিয়নের সরলী গ্রামে রুবেলকে সন্দেহ জনকভাবে ঘুরাফেরা করতে দেখে স্থানীয় লোকজন থানায় খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তাকে থানায় নিয়ে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করে জানতে পারে তার নাম রুবেল।

থানা পুলিশ আরো জানতে পারে, রুবেল একই সাথে বাক ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী এক ব্যাক্তি। রুবেলের দেখ ভাল দ্বায়িত্বে ছিলেন সাপাহার থানার কম্পিউটার অপারেটর কনস্টেবল তৌহিদ। তিনি রুবেলকে ৬ দিন পরম মমতায় আগলে রাখেন।

এরপর রুবেলকে থানা হেফাজতে রেখে পুলিশ সুপারের নির্দেশনা অনুযায়ী পরিবারের সন্ধানে স্থানীয় সংবাদিকদের সহযোগীতায় সময়ের কণ্ঠস্বরসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক প্রচারণা চালানো হয়।

অবশেষে পুলিশ জানতে পারে, বাক ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী রুবেল (২৬) নীলফামারী জেলার সদর উপজেলার কচুকাটা (উত্তর পাড়া) গ্রামের সাবেক শিক্ষক তৈয়ব আলীর ছেলে। বিষয়টি সাপাহার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল হাই রুবেলের পরিবারকে জানালে খবর পেয়ে রুবেলের বাবা-মাসহ পরিবারের লোকজন ছুটে আসেন নওগাঁয় তাদের আদরের সন্তানটিকে ফিরে পেতে।

গত সোমবার রাত ৯ টায় নওগাঁ পুলিশ সুপারের সম্মেলন কক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আবদুল মান্নান মিয়া উপস্থিত থেকে সাপাহার থানা হেফাজতে থাকা বাক ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী রুবেল কে তার বাবা সাবেক শিক্ষক তৈয়ব আলী'র জিম্মায় দেওয়া হয়।

এ সময় সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাকিবুল আক্তার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (গোয়েন্দা শাখা) ফারজানা হোসেন, সহকারী পুলিশ সুপার সুরাইয়া খাতুন, সাপাহার সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) বিনয় কুমার, অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল হাই, রুবেলের পরিবারবর্গ ও সাংবাদিকগণ উপস্থিত ছিলেন।