‘১০০ জনে ৯০ জনই বলবে এই সরকার চাই না’- ফখরুল

fok
❏ বুধবার, জানুয়ারী ১, ২০২০ আলোচিত বাংলাদেশ

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, দেশের মানুষ ভোট দিতে পারেনি। আমি চ্যালেঞ্জ করে বলতে চাই, ১০০ জনকে জিজ্ঞাসা করলে ৯০ জনই বলবে, আমরা এই সরকারকে চাই না। আমি ভুল বলছি না।

বুধবার (১ জানুয়ারি) বেলা ৩টায় রাজধানীর রমনায় ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলায়তনে এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। বিএনপির ছাত্রসংগঠন ছাত্রদলের ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এ আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

আওয়ামী লীগ বন্দুক দিয়ে, গায়ের জোরে ক্ষমতায় বসে আছে দাবি করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘জনগণের সরকার তো তারা নয়। ওবায়দুল কাদের আসুন, আপনার ওই পুলিশ বাদ দিয়ে দেখুন, মানুষ কী বলে।’

তিনি বলেন, ‘আজকে পত্রিকায় একটি কলাম ছাপা হয়েছে। আওয়ামী লীগপন্থী এক লেখক সেটা লিখেছেন। তিনি কিছুদিন আগে সিলেট গিয়েছিলেন। কলামে বলছেন, মানুষ আর পছন্দ করছে না এই সরকারের মন্ত্রীদের। সরকারকে বলবো দেয়াল ভাষা পড়ুন। মানুষ কী বলতে চায়, তা দেখুন।’

সারাদেশের মানুষ পরিবর্তন চায় দাবি করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘তারা নতুন সরকার দেখতে চায়, জনগণের সরকার দেখতে চায়। বন্দুক দিয়ে কিছুদিন আটকে রাখা যায়। সব সময় ধরে রাখা যায় না।’

খালেদা জিয়া অন্ধকারে কারাগারে শীতের মধ্যে অত্যন্ত কষ্টে আছেন অভিযোগ করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আমি গতকালই খবর পেয়েছি, তার রুম গরম করার জন্য একটি রুম হিটার নিয়ে গিয়েছিল। কিন্তু ভয়ংকর, নির্মম এই সরকার হিটারটাও নিয়ে গেছে!’

ছাত্রদল নেতাকর্মীদের উদ্দেশে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা তোমাদের পথের দিশা দেখাতে পারি, কিন্তু সেই পথে পথিকৃত কারা হবে? তোমরাই হবে। তোমরাই সেই ভ্যানগার্ড, যারা সামনের দিকে এগিয়ে যায়, যাদের কোনও পিছুটান থাকে না। যারা পৃথিবীর সভ্যতাকে পাল্টে দেয়, তারাই তরুণ সমাজ। কবিরা বলছেন, যারা যুবক তাদেরই এখন যুদ্ধে যাওয়ার সময়। তোমাদের দিকে ওই জেলখানা থেকে তাকিয়ে আছে আমাদের নেত্রী খালেদা জিয়া।’

ছাত্রদলের সভাপতি ফজলুর রহমান খোকনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামলের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমান উল্লাহ আমান, বিএনপির বিশেষ সম্পাদক আসাদুজ্জামান রিপন, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী প্রমুখ।