• আজ বুধবার, ২৯ বৈশাখ, ১৪২৮ ৷ ১২ মে, ২০২১ ৷

বাংলাদেশের ভিডিওকে ভারতের দাবি করে বিপাকে ইমরান খান

❏ শনিবার, জানুয়ারী ৪, ২০২০ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- সাতবছরের পুরনো বাংলাদেশের একটি ভিডিওকে ভারতের বলে দাবি করে প্রতিবেশী ভারতকে অস্বস্তিতে ফেলতে গিয়ে নিজেই বিপাকে পড়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

ভারতের উত্তরপ্রদেশের ভিডিও দাবি করে বাংলাদেশের পুরনো একটি ভিডিও পোস্ট করার সঙ্গে সঙ্গে তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েন তিনি। অবশ্য, পোস্ট করার দুইঘণ্টার মধ্যেই টুইটটি সরিয়ে দেওয়া হয় ইমরান খানের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির খবরে বলা হয়, ইমরান খান তার অফিসিয়াল টুইটার হ্যান্ডেলে একটি ভিডিও পোস্ট করেন। সেখানে তিনি লিখেন, ‘ইউপির মুসলমানদের বিরুদ্ধে ভারতীয় পুলিশদের অত্যাচার।’

বিভিন্ন টুইটার ব্যবহারকারী ইমরান খানের শেয়ার করা ভিডিও’র অনুরূপ ভিডিও খুঁজে পান। ইমরানের শেয়ার করা ভিডিও’র অনুরূপ ভিডিও’র শিরোনাম ‘হেফাজত-এ-ইসলাম বাংলাদেশ পুলিশের বর্বরতা’। এ ভিডিওটি ২০১৩ সালে ইউটিউবে আপলোড করা হয়েছে।

তবে নেটিজেনদের সমালোচনার মুখে কিছুক্ষণের মধ্যেই সরিয়ে নেওয়া হয় ওই টুইট। টুইট সরিয়ে নিলেও স্ক্রিনশট ভাইরাল হয়েছে অনলাইনে।

ইমরানের দাবি নিয়ে সরব হয়েছে উত্তর প্রদেশ পুলিশও। ইমরানের ওই টুইটের পাল্টা হিসেবে উত্তর প্রদেশের পুলিশ লিখেছে, ‘এটা উত্তর প্রদেশের নয়, ২০১৩-র মে মাসে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার একটি ঘটনা। পোশাকে লেখা রয়েছে র‌্যাব (র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ন)।’

এ টুইটের সঙ্গে বেশ কিছু লিঙ্ক দিয়েও ইমরান খানের উদ্দেশে উত্তর প্রদেশ পুলিশের মন্তব্য করেছে, ‘এ বিষয়ে আপনাকে অবগত করতে এই লিংকগুলো সাহায্য করবে। ’

এরপর বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের খবরে প্রকাশ পায় যে, ভিডিওটি আসলে ২০১৩ সালের। বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায় হেফাজতে ইসলামের সমাবেশে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ শুরু হয়। দোকানপাটে আগুন দেওয়া হয় শহরের কিছু এলাকায়। এরপরই আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা শুরু করেন লাঠিপেটা। ইমরান খান টুইট করেন সাত বছর আগে বাংলাদেশের ঘটনার ভিডিও।