টাঙ্গাইলে সাংবাদিকদের উপর হামলার বিচার দাবিতে সৌদি আরবে প্রতিবাদ সভা


❏ রবিবার, জানুয়ারী ৫, ২০২০ প্রবাসের কথা

নিজস্ব প্রতিবেদক, সময়ের কণ্ঠস্বর- পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে সাংবাদিকদের উপর হামলাকারী সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে প্রতিবাদ সভা করেছে সৌদি আরব প্রবাসী সাংবাদিকরা।

শনিবার (০৪ জানুয়ারি) দুপুরে স্থানীয় এক হোটেলে এই প্রতিবাদ সভার আয়োজন করে রিপোর্টাস এসোসিয়েশন অব ইলেকট্রনিক মিডিয়া সৌদি আরব পশ্চিমাঞ্চল।

অনুষ্ঠানে রিপোর্টাস এসোসিয়েশন অব ইলেকট্রনিক মিডিয়া সৌদিআরব পশ্চিমাঞ্চলের সভাপতি এম ওয়াই আলাউদ্দিনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সংগঠনটির প্রধান উপদেষ্টা রুমী সাঈদ, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক বাহার উদ্দিন বকুলসহ প্রবাসী সাংবাদিকরা।

এসময় সাংবাদিক নেতারা বলেন, সাংবাদিকদের উপর হামলা শুধু গণতন্ত্রের পথে বাধা নয় মানুষের অধিকারে আঘাত হানে। সাংবাদিকরা কোন দলের নয় দেশের সম্পদ, কাপুরুষরাই সাংবাদিকদের উপর এমন ন্যাক্কারজনক হামলা করতে পারে।

সাংবাদিক নেতা এম ওয়াই আলাউদ্দিন বলেন, সন্ত্রাসী হামলার তিনদিন অতিবাহিত হলেও এখনো প্রধান আসামিসহ মূলহোতাদের পুলিশ গ্রেফতার করতে পারেনি। অথচ গণমাধ্যমে খবর এসেছে তারা প্রকাশ্যে এলাকায় ঘুরে বেড়াচ্ছে। এর চেয়ে লজ্জাজনক আর কিছু হতে পারে না।

সাংবাদিকের উপর হামলাকারী ও জুয়ার আসরের মূলহোতাদের বিরুদ্ধে যদি দ্রুত কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ না করা হয়, তবে সাংবাদিকদের স্বার্থে সামনে আরও কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (২ জানুয়ারি) বিকেলে টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলার গোবিন্দাসী ঘাট সংলগ্ন কাঁশবন এলাকায় জুয়ার আসরের সচিত্র সংবাদ সংগ্রহে গিয়ে জুয়াড়িদের হামলায় আহত হন ডিবিসি টেলিভিশনের টাঙ্গাইল প্রতিনিধি সোহেল তালুকদার, ক্যামেরা পারসন আশিকুর রহমান, দৈনিক ইত্তেফাকের সাংবাদিক অভিজিৎ ঘোষ ও স্থানীয় সাংবাদিক মোহাইমিনুল মন্ডলসহ নৌকার দুই মাঝি। এসময় একটি বেসরকারি টেলিভিশনের ক্যামেরা ও বুম (মাইক্রোফোন) ভাঙচুর করা হয়।

এ ঘটনায় রাতেই জুয়াড়িদের হামলার শিকার সাংবাদিক সোহেল তালুকদার বাদি হয়ে ৮ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও অর্ধশতাধিক ব্যক্তির নামে ভূঞাপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পরে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৪ আসামিকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

তবে ঘটনার তিন দিন পেরিয়ে গেলেও মামলার প্রধান আসামি ফজল মন্ডলসহ হামলায় নেতৃত্ব দেওয়া প্রভাবশালীরা এখনো ধরা ছোঁয়ার বাইরে রয়েছেন। তবে তারা নিজ এলাকায় প্রকাশ্যেই ঘুরাফেরা করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।