🕓 সংবাদ শিরোনাম

রোজিনার সঙ্গে যারা অন্যায় করেছে, তাঁদের জেলে পাঠান: ডা. জাফরুল্লাহকেরানীগঞ্জে ফ্ল্যাট থেকে যুবতীর অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধারপাটগ্রাম সীমান্তে অবৈধভাবে অনুপ্রবেশের দায়ে নারী ও শিশুসহ ২৪জন আটকসাংবাদিকদের ভয় দেখিয়ে সরকার গণমাধ্যমের কণ্ঠরোধ করতে চায়: ভিপি নুরসাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মামলা নয়, দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিন: হানিফআর এমন ভুল হবে না: নোবেলস্বেচ্ছায় কারাবরণের আবেদন নিয়ে থানায় অনুসন্ধানী সাংবাদিকেরাইসরায়েলি আগ্রাসনের প্রতিবাদে রাস্তায় ঢাবি শিক্ষক সমিতিযমুনা নদীতে ডুবে তিন কলেজ ছাত্রীর মর্মান্তিক মৃত্যু‘বাংলাদেশে সাংবাদিকতাকে তথ্য চুরি বলা হচ্ছে, এর চেয়ে দুঃখ আর নেই’

  • আজ বুধবার, ৫ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ ৷ ১৯ মে, ২০২১ ৷

শিক্ষার্থী ধর্ষণের সিসিটিভি ফুটেজ পাওয়া গেছে: ডিসি গুলশান জোন


❏ মঙ্গলবার, জানুয়ারী ৭, ২০২০ আলোচিত বাংলাদেশ

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- রাজধানীর কুর্মিটোলা গলফ ক্লাবের প্রান্তে সড়কের পাশের জায়গাকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনাস্থল হিসেবে চিহ্নিত করেছে পুলিশ। আসামী ধরতে প্রযুক্তির সহায়তা নেওয়া হচ্ছে। এছাড়াও সিসিটিভির ফুটেজ পাওয়া গেছে।

মঙ্গলবার সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সাংবাদিকদের এ কথা জানান পুলিশের গুলশান বিভাগের উপকমিনার (ডিসি) সুদীপ কুমার চক্রবর্তী। তিনি বলেন, ফুটেজ বিশ্লেষণ করে তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যমে দ্রুত প্রকৃত অপরাধীকে শনাক্ত করা হবে।

ডিসি সুদীপ কুমার আরও বলেন, ঘটনাস্থলের আশপাশের দুটি সিসিটিভির ফুটেজ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সেগুলো তদন্ত করা হচ্ছে। এই মামলাটি তদন্তের জন্য মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি-উত্তর বিভাগ) কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

গত রবিবার বিকাল সাড়ে পাঁচটার পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে করে বান্ধবীর বাসায় যাচ্ছিলেন ঘটনার শিকার ওই ছাত্রী। কুর্মিটোলা বাস স্টেশনে নামার পর তাকে অজ্ঞাত এক ব্যক্তি অনুসরণ করতে থাকে। একপর্যায়ে মাঝপথে তাকে ধরে নির্জন স্থানে নিয়ে ধর্ষণ করে। রাত ১০টার দিকে জ্ঞান ফিরলে রিকশায় করে বান্ধবীর বাসায় যান ওই ছাত্রী।

সেখান থেকে বান্ধবীসহ অন্য সহপাঠীরা রাত পৌনে একটার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করেন। ঘটনাটি জানাজানি হওয়ার পর থেকে বিক্ষোভে ফেটে পড়েন ঢাবি শিক্ষার্থীরা। দুদিন ধরে ন্যক্কারজনক এই ঘটনার বিচার দাবিতে আন্দোলনে উত্তাল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস।

আজ সকালেই তীব্র শীতের মধ্যেও শিক্ষার্থীরা জড়ো হয়ে বিক্ষোভ মিছিল করছেন। স্লোগানে-স্লোগানে ধর্ষণের প্রতিবাদ ও এর বিচার দাবি করছেন তারা। শত শত শিক্ষার্থী ব্যানার-ফেস্টুন হাতে আন্দোলন কর্মসূচি শুরু করেন।

সকাল সাড়ে ১০টার দিকে প্রথমে শুভ সংঘের ব্যানারে প্রতিবাদ জানানো হয়। বেলা পৌনে ১১টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলার শিক্ষার্থীসহ অন্যান্য বিভাগের শিক্ষার্থীরা মিলে মুখে কালো পতাকা বেঁধে পদযাত্রা সহকারে রাজু ভাস্কর্যের সামনে অবস্থান নেন।

সকালে সন্ত্রাসবিরোধী রাজু স্মারক ভাস্কর্যে গিয়ে দেখা যায়, ভাস্কর্যগুলোর মাথায় কালো কাপড় বেঁধে রাখা হয়েছে। দেশে অনাচার-অবিচার বৃদ্ধির প্রতীকী প্রতিবাদ হিসেবেই ভাস্কর্যগুলোর মাথায় কালো কাপড় বেঁধে দেয়া হয়েছে বলে জানান উপস্থিত কয়েকজন।

এদিকে ছাত্রলীগের আয়োজনেও আজ প্রতিবাদী চিত্রাঙ্গন, মানববন্ধন, ছাত্র শিক্ষক সমাবেশ ও সাংস্কৃতিক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

পৃথকভাবে কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছেন বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থীরাও। বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী গতকাল থেকেই অনশন কর্মসূচি পালন করছেন।

সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ, বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনের পাশাপাশি সোচ্চার হয়ে উঠেছে সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলোও।