🕓 সংবাদ শিরোনাম

কর্মস্থলে ফিরতে গাদাগাদি করে রাজধানীমুখী লাখো মানুষশেরপুরে পৃথক ঘটনায় একদিনে ৭ জনের মৃত্যুএক বিয়ে করে দ্বিতীয় বিয়ের জন্যে বড়যাত্রীসহ খুলনা গেল যুবক!আমার মৃত্যুর জন্য রনি দায়ী! চিরকুট লিখে স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যাইসরাইলীয় আগ্রাসনের  বিরুদ্ধে ইসলামী বিশ্বের নিন্দার নেতৃত্বে সৌদি আরবত্রিশালে সড়ক দূর্ঘটনায় ৩ জনের মৃত্যুতে নিহতের বাড়ীতে চলছে শোকের মাতমকলাপাড়ায় এক সন্তানের জননীর মরদেহ উদ্ধারটাঙ্গাইলে কৃষক শুকুর মাহমুদ হত্যা মামলায় গ্রেফতার-১ফরিদপুরে নানা আয়োজনে প্রধানমন্ত্রীর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিতজামালপুরে ঘর মেরামতের সময় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে তিন জনের মৃত্যু

  • আজ সোমবার, ৩ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ ৷ ১৭ মে, ২০২১ ৷

বাইসাইকেল পেয়ে ওরা খুশি

Gopalganj
❏ বুধবার, জানুয়ারী ৮, ২০২০ ঢাকা

এইচ এম মেহেদী হাসানাত, স্টাফ রিপোর্টার গোপালগঞ্জ: বছরের শুরুতেই গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার সব মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৩৫৫ কন্যা শিক্ষার্থী বাই সাইকেল পেয়ে সন্তুষ্টি প্রাকাশ করেছে।

শিক্ষার্থী  কাজী কামরুন্নাহার নিশি, ফাতেমা খানম, সানিয়া আক্তার সৃস্টি, দীপা সরকার, অন্তরা সরকার বলেন, ‘আমাদের বাড়ি থেকে স্কুলের দূরত্ব বেশি।তাই  ভ্যানে  অথবা পায়ে হেঁটে সঠিক সময়ে স্কুলে পৌঁছানো  ছিলো কষ্টকর । জেলা প্রশাসক আমাদের সাইকেল দেয়ার উদ্যোগ গ্রহন করেন। মঙ্গলবার সাইকেল পেয়েছি। এখন সঠিক সময়ে স্কুলে যেতে পারছি। সময়মতো প্রাইভেট পড়তে পারছি, আমদের মনোবল বেড়ে গেছে। শিক্ষা, খেলাধূলা সংস্কৃতি চর্চা, বাল্য বিবাহ, ইভটিজিং প্রতিরোধে  উৎসাহ উদ্দিপনা সৃস্টি হয়েছে। আমাদের মতো স্কাউট হয়ে সাইকেল পেলে সহপাঠীরাও স্বপ্ন দেখছে। ২০৪১ সালে আমরা জাতির পিতার স্বপ্নের উন্নত সমৃদ্ধ দেশ গড়ে তুলবো।’

“আপন আলো জ্বালো” প্রতিপাদ্যে “আমি অদম্য, আমি সাহসী, আমি দিশারি, আমি স্বপ্নেভরা এক কিশোরী” এই প্রতিপাদ্যে মুজিব বর্ষ উপলক্ষে গোপালগঞ্জ জেলার সব মাধ্যমিক স্কুলের স্কাউট কন্যা শিক্ষার্থীদের বাইসাইকেল দেওয়া উদ্যোগ গ্রহন করেন জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা। ।

সেই কর্মসূচীর অংশ হিসেবে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার ২১টি ইউনিয়ন ও গোপালগঞ্জ পৌরসভার জনপ্রতিনিধিদের অর্থায়নে সদর উপজেলার ৩৫৫ জন কন্যা শিক্ষার্থীর হাতে বাই সাইকেল তুলে দেন প্রধান অতিথি জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা ।

মঙ্গলবার  গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদ সংলগ্ন বধ্য ভূমি চত্বরে  গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সাদিকুর রহমান খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় সদর উপজেলা যুব উন্নয়ন অফিসার মো. সায়াদ উদ্দিন, সদর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নিরুন্নাহার, সহকারী কমিশনার ভূমি মো. মানোয়ার হোসেন, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মামুন ইসলাম, ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম, মো. কামরুল ইসলাম বাবুল, প্রধান শিক্ষক মো. আনিচুর রহমান, শিক্ষার্থী মেহেরুন ইসলাম রুম্পাসহ অনেকে বক্তব্য রাখেন।

জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা বলেন, ‘মুজিববর্ষে জেলার সব মাধ্যমিক স্কুলে ছাত্রীদের বাইসাইকেল দেওয়া হচ্ছে।ইতি মধ্যে আমরা সদর উপজেলা ও টুঙ্গিপাড়ায় সাইকেল বিতরণ করেছি। বাকী ৩ উপজেলায়ও সাইকলে বিতরণ করা হবে। এতে করে তারা আপন আলোয় জ্বলে উঠবে। জেলার গ্রাম এলাকায় অনেক মেধাবী ও গরীব পরিবারের শিক্ষার্থী রয়েছে, যাদের বাড়ি স্কুল থেকে বেশ দূরে। এ কারণে তারা সঠিক সময়ে স্কুলে যেতে পারে না। তাছাড়া গ্রামের মেয়েরা সাধরণত সাহসী নায়, এ কারণে তারা ইভটিজিংয়ের শিকার হয়ে থাকে। বাইসাইকেল পেয়ে শিক্ষার্থীরা সঠিক সময়ে স্কুলে যেতে পারবে, লেখাপড়ায় আরও মনোনিবেশ করবে। মেয়েরা আত্মনির্ভরশীল হবে।’

গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার মাঝিগাতী দশপল্লী এন.কে উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক প্রসাদ কুমার মৃধা বলেন, ‘বাইসাইকেল পেয়ে কন্যা শিক্ষার্থীরা উচ্ছসিত। তাদের মধ্যে অদম্য সাহস সৃস্টি হয়েছে। তারা শিক্ষা, খেলাধূলা, সংস্কৃতি চর্চা, বাল্য বিবাহ, ইভটিজিং, মাদক প্রতিরোধে সচেতনতা বৃদ্ধিতে প্রচার চালাবে বলে আমাকে জানিয়েছে।