সংবাদ শিরোনাম
নান্দাইলে বাস চাপায় নারী নিহত | ২০২১ সালে খুলে দেয়া হবে স্বপ্নের পদ্মাসেতু: রেলমন্ত্রী | সিঁদ কেটে তুলে নিয়ে শিশু ধর্ষণকারী আলী হোসেন গ্রেফতার | সব মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের জন্য সুখবর দিলেন প্রধানমন্ত্রী | হাসপাতালের পরীক্ষার বিল ডাকাতির মতো: মেয়র আতিক | টাঙ্গাইলে খাটের নিচে মিলল ১শ’ বোতল ফেন্সিডিল, গ্রেফতার ১ | কক্সবাজারের ৮ থানার ওসিসহ ২৬৪ জন পুলিশ কর্মকর্তাকে একযোগে বদলি | পঞ্চগড়ে মায়ের সাথে অভিমান করে মাদ্রাসা ছাত্রীর আত্মহত্যা | রাজবাড়ীতে আ.লীগ নেতাকর্মীদের পুলিশি হয়রানির অভিযোগ, প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন | কুড়িগ্রামের অবৈধ কর্ম-কান্ডের দায়ে আ‘লীগ নেতা আটক, গণধোলাই! |
  • আজ ৯ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

কাসেম সোলাইমানি হত্যায় আইএসের উল্লাস

১১:৪৬ পূর্বাহ্ণ | শনিবার, জানুয়ারি ১১, ২০২০ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- বাগদাদ বিমানবন্দরে মার্কিন হামলায় ইরানি জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে হত্যার ঘটনায় উল্লাস প্রকাশ করেছে মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গি গোষ্ঠী আইএস।

রুশ গণমাধ্যম আরটির খবরে এমন তথ্য জানা গেছে। গত ৩ জানুয়ারি বাগদাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে মার্কিন ড্রোন হামলায় নিহত হয়েছেন আল-কুদস ফোর্সের প্রধান সোলাইমানি।

আইএসের সংবাদমাধ্যম সাপ্তাহিক নাবায় বলা হয়েছে, সোলাইমানি হত্যা তাদের সমর্থনে আল্লাহর কাজ। তবে তাদের এই পত্রিকার সম্পাদকীয়তে অত্যন্ত সতর্কভাবেই এই হত্যাকাণ্ডে যুক্তরাষ্ট্রকে কৃতিত্ব দেয়া হয়নি। এমনকি সোলাইমানির নামও উল্লেখ করা হয়নি। এতে রোমান-পারস্য যুদ্ধের কথা উল্লেখ করে ঐতিহাসিক তুলনা টানা হয়েছে।

বিবিসির সাংবাদিক মিনা আল-লামি এক টুইটবার্তায় বলেন, এক শত্রুর হাতে অন্যশত্রু আক্রান্ত হলে এভাবে আত্মতৃপ্তি প্রকাশ করে জঙ্গিরা।

আইএসের হাতে কোনো অঞ্চলের নিয়ন্ত্রণ না থাকলেও পুরোপুরি ধ্বংস হয়নি তারা। কিন্তু এই জঙ্গি গোষ্ঠীর বিপর্যয়ে সোলাইমানির আল-কুদস ফোর্সের ব্যাপক অবদান রয়েছে।

আইএস ফিরে আসতে পারে এমন সম্ভাবনায় ইরাক থেকে সেনা প্রত্যাহারে অস্বীকার করেছে যুক্তরাষ্ট্র। সোলাইমানি হত্যাকাণ্ড স্বর্গী হস্তক্ষেপ আখ্যায়িত করে নিজেদের উত্থানে সহায়ক হবে বলে জানিয়েছে আইএস।

এদিকে সাংস্কৃতিক স্থাপনাসহ ইরানের ৫২ টি লক্ষ্যবস্তুতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের প্রতিশোধের ঘোষণাকে আইএসের জঙ্গে তুলনা করেছেন ইরানের তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রী জাভেদ আজহারি-জাহরোমি।

তিনি বলেন, আইএস, হিটলার ও চেঙ্গিশের মতো তারা সংস্কৃতিকে ঘৃণা করেন। ট্রাম্প হচ্ছেন স্যুট-টাই পরা একজন সন্ত্রাসী।

উল্লেখ্য, সোলাইমানির জন্ম ইরানের কেরমান প্রদেশের এক দরিদ্র পরিবারে। পরিবারকে সহায়তায় ১৩ বছর বয়সেই তিনি উপার্জন করা শুরু করেন। অবসর সময়ে তিনি শরীর গঠন এবং খোমেইনির নসিহত শুনতেন।

সোলাইমানি ছিলেন ইরানের অন্যতম প্রধান রণকৌশলী। নিজেদের সীমা ছাড়িয়ে আশপাশের দেশগুলোতে ইরানের সরব সামরিক উপস্থিতির অনুঘটক হিসেবে বিবেচনা করা হয় তাকে। ১৯৯৮ সালে ইরানের রেভল্যুশনারি গার্ডের কুদস ফোর্সের প্রধানের দায়িত্ব পান তিনি। এর পর থেকে অন্তরালে লেবানের হিজবুল্লাহ, সিরিয়ায় বাশার আল আসাদ এবং ইরাকে শিয়া মতাদর্শী মিলিশিয়া বাহিনীর সঙ্গে ইরানের সম্পর্ক জোরদার করেন তিনি।

গত ১৫ বছর ধরে মেজর জেনারেল কাসেম একজন গুরুত্বপূর্ণ সামরিক কৌশলী হিসেবে তৈরি হয়েছেন। সিরিয়া ও ইরাকে জঙ্গিবাদবিরোধী লড়াইয়ে তার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। এই অভিজাত বাহিনীটি দেশের বাইরে গুপ্ত হামলা চালিয়ে থাকে। তবে আশির দশকে ইরান-ইরাক যুদ্ধের সময় দায়িত্ব পালন করার সময় তিনি প্রথম পরিচিতি লাভ করেন।