• আজ ৬ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বিদেশ যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল এনামুল ও রূপনের

৪:২৯ অপরাহ্ণ | সোমবার, জানুয়ারি ১৩, ২০২০ আলোচিত বাংলাদেশ

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- ক্যাসিনোবিরোধী অভিযান শুরুর পর আলোচিত দুই ভাই গেন্ডারিয়া থানা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এনামুল হক ও সাধারণ সম্পাদক রূপন ভূঁইয়াকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

রোববার রাতে কেরানীগঞ্জ থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের নামে ৪টি মামলা রয়েছে।

আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী বলছে, এনু ও রুপন মতিঝিলে ওয়ান্ডারার্স ক্লাবে ক্যাসিনোকাণ্ডের অন্যতম হোতা। স্থানীয়ভাবেও তাদের পরিবার ‘জুয়াড়ি পরিবার’ হিসেবে চিহ্নিত।

সিআইডির ডিআইজি ইমতিয়াজ আহমেদবলেন, ঘটনার পরপরই তারা কক্সবাজার গিয়ে আত্মগোপন করে থাকে। সেখান থেকেই তারা ভুয়া পাসপোর্ট বানিয়ে বিদেশে পাড়ি জমানোর পরিকল্পনা করেন। প্রথমে মিয়ানমার, ভারত সর্বশেষ নেপাল যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল তাদের। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গতকাল কেরানীগঞ্জ থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। এ সময় তাদের কাছে আনুমানিক ৪০ লাখ টাকা পাওয়া যায়।

এদিকে ক্যাসিনোকাণ্ডের পর থেকেই এসব মামলার তদন্ত করেন সিআইডি। সিআইডি জানিয়েছে, তদন্তকালে এনামুল হক ইনু এবং রুপন ভুঁইয়া তাদের নামে ঢাকায় ২২টি বাড়ি ও জমির সন্ধান পাওয়া যায়। এছাড়াও তাদের ব্যবহৃত পাঁচটি যানবাহনের সন্ধান পাওয়া যায়। বিভিন্ন ব্যাংকে তাদের নামে ৯১টি ব্যাংক হিসাব বিবরণী পর্যালোচনা করে প্রায় ১৯ কোটি ১৮ লাখ টাকা তথ্য পেয়েছি। যা বর্তমানে অবরুদ্ধ (ফ্রিজ) করা হয়েছে।

এর আগে গত ২৪ সেপ্টেম্বর এনামুল হক ও রূপন ভূঁইয়ার বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ টাকা ও স্বর্ণ জব্দ করে র‌্যাব। তাদের বাসা থেকে নগদ দুই কোটি টাকা উদ্ধার করা হয়। অভিযানকালে র‌্যাব-৩ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল শাফিউল্লাহ বুলবুল বলেন, আমাদের কাছে তথ্য ছিল, এনামুল হক ওরফে এনু ও রূপন ভূঁইয়া ক্যাসিনোর শেয়ারহোল্ডার। ক্যাসিনোর লাভের টাকা তারা বাসায় নিয়ে রাখতেন। নগদ টাকা রাখলে অনেক জায়গার প্রয়োজন হয় তাই তারা টাকা দিয়ে স্বর্ণ কিনে রাখতেন।