সংবাদ শিরোনাম
  • আজ ১২ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

চিকিৎসক সংকটে রমেকের বার্ণ ইউনিটে মেলে না কাঙ্ক্ষিত সেবা

৪:০২ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, জানুয়ারি ২১, ২০২০ দেশের খবর, রংপুর

সাইফুল ইসলাম মুকুল, রংপুর প্রতিনিধি- রংপুর মেডিকেল কলেজ (রমেক) হাসপাতালের বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগে চিকিৎসক সংকট চরম আকার ধারণ করেছে। সাতজন চিকিৎসক থাকার কথা থাকলেও একজন চিকিৎসক ও কিছু শিক্ষানবিশদের দিয়ে চলছে বিভাগটি। এতে প্রয়োজনের সময় চিকিৎসকের কাছ থেকে কাঙ্খিত সেবা না পেয়ে হতাশ রোগীরা। এতে করে পোহাতে হচ্ছে দূর্ভোগ।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, রমেক হাসপাতালের ৩৭ নং ওয়ার্ডের পুরুষ, মহিলা ও শিশুদের সেবা দেয়ার জন্য বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটে নেই তেমন চিকিৎসক। কিছু শিক্ষানবিশ চিকিৎসক আর আয়াদের সামান্য সহানুভূতিই যেন রোগীদের সেবার ভরসা। তবে একজন চিকিৎসকের নাম ও চেহারাই রোগীদের চোখের সামনে ভেসে উঠে বারবার। কারণ এই বার্ন ইউনিটে দায়িত্বে থাকা অন্য চিকিৎসকদের দেখা নেই।

সংশ্লিষ্ট ইউনিট সূত্রে জানা গেছে, খাতা কলমে বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগের দায়িত্বে সাত চিকিৎসক থাকলেও শুধুমাত্র বিভাগীয় প্রধান এম. এ হামিদ পলাশকেই দেখা যায়।

বার্ন ইউনিটে কয়েকজন রোগী ও তাদের স্বজনের সঙ্গে কথা হয়। নাম না প্রকাশের শর্তে তারা জানান, বার্ন ইউনিটে ভালো সেবা নেই। চিকিৎসক নেই। চিকিৎসাও ব্যয়বহুল। স্যালাইন ছাড়া হাসপাতাল থেকে আর কিছুই দেওয়া হয় না। তবে শিক্ষানবিশ চিকিৎসকরা এসে মাঝে মধ্যে খোঁজখবর নিয়ে যান।

চলতি শীত মৌসুমে গত এক মাসে এই ইউনিটে এখন পর্যন্ত ৮ নারী ও দুই শিশুসহ ১৩ জন মারা গেছেন। এখনো চিকিৎসাধীন আছেন ২৫ জন। রোগীরা কাঙ্খিত সেবা না পেয়ে দুর্ভোগ আর হতাশায় ভুগলেও এ নিয়ে কথা বলতে নারাজ বিভাগটির প্রধান।

তবে শীত নিবারণে রোগীদের গরম কাপড় ব্যবহারসহ সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছেন বার্ন ইউনিট ও প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান এম এ হামিদ পলাশ। তিনি বলেন, আমরা রোগীদের সেবা দেয়ার জন্যই সবসময় কাজ করছি। প্রয়োজনীয় ওষুধ ছাড়া তাদের নিয়মিত পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।

Loading...