সংবাদ শিরোনাম
শেকৃবির হল থেকে ছাত্রলীগ নেতার বিছানাপত্র ফেলে দিল কর্মীরা | ‘দেশে আজ আর কেউ না খেয়ে থাকে না’- পরিকল্পনামন্ত্রী | বর্ণাঢ্য আয়োজনে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত | কৃষি অর্থনীতি ও গ্রামীণ সমাজবিজ্ঞান অনুষদে প্রতি বছর বৃত্তি পাবে ৭ শিক্ষার্থী | এবার রাবিতে মাতৃভাষা দিবসের ব্যানারে বীরশ্রেষ্ঠদের ছবি | ‘বর্তমানে আমরা পাকিস্তান আমলের চেয়েও খারাপ অবস্থায় আছি’- অলি আহমদ | ‘শত্রুরা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে একাত্তরের পরাজয়ের প্রতিশোধ নিয়েছিল’ | আন্ডারওয়ার্ল্ডের নেতৃত্ব দিতে ঢাকায় এসে গ্রেফতার শাকিল | ‘গৃহহীনদের ঘর তৈরি করে দেবো’- প্রধানমন্ত্রী | কুড়িগ্রামে সাবেক এমপি‘র আত্মহত্যার হুমকি! |
  • আজ ১০ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশিদের দেখলেই চেনা যায়, ওরা চিড়া খায়: বিজেপি নেতার কটূক্তি

৯:৪২ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, জানুয়ারি ২৪, ২০২০ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- কয়েকদিন আগেই দিল্লির রামলীলা ময়দানে থেকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, পোশাক দেখলেই চেনা যায় কারা সহিংসতা সৃষ্টি করছে। সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) এবং জাতীয় নাগরিকপঞ্জিকে (এনআরসি) কেন্দ্র করে গোটা ভারতজুড়ে সহিংসতার ঘটনায় ওই মন্তব্য করেছিলেন মোদি।

‘পোশাক’ নিয়ে মোদির ওই মন্তব্য ঘিরে সেসময় বিতর্ক কম হয়নি। মোদির পর এবার তারই দলের এক প্রভাবশালী নেতা বললেন, খাওয়া দেখে চেনা যায় যে কারা বাংলাদেশি। নিজের বাড়িতে নির্মাণাধীন শ্রমিকদের চিড়া খাবারের অভ্যাস দেখে ওই মন্তব্য করেন বিজয়বর্গীয়।

বৃহস্পতিবার মধ্যপ্রদেশের ইনদোরে সিএএ-এর সমর্থনে আয়োজিত এক সমাবেশ থেকে বিজেপি নেতা এবং দলটির অন্যতম কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক কৈলাস বিজয়বর্গীয় এ মন্তব্য করেন।

বিজয়বর্গীয় বলেন, তাঁর বাড়িতে নতুন একটি ঘর তৈরি করার কাজে লাগেন কয়েকজন রাজমিস্ত্রী। তাঁদের খাওয়াদাওয়া তাঁর মতে অদ্ভুত, কেন না তাঁরা পোহা বা চিঁড়ে খান। ঠিকাদারের সঙ্গে কথা বলে তাঁর সন্দেহ হয়, ওঁরা সকলে বাংলাদেশ থেকে এসেছেন। এর দিনদুয়েক পর ওই রাজমিস্ত্রীরা কাজ বন্ধ করে দেন। এ নিয়ে এখনও পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেননি তিনি, তবে মানুষকে এ ব্যাপারে সাবধান করার চেষ্টা করছেন।

বিজয়বর্গীয় আরও বলেছেন, এক বাংলাদেশি জঙ্গি গত দেড় বছর ধরে তাঁর দিকে নজর রেখে চলেছে। তাই যখনই তিনি বাইরে যান, সঙ্গে থাকেন ৬ জন সশস্ত্র নিরাপত্তারক্ষী। এ দেশে হচ্ছেটা কী? বাইরের লোকেরা ইচ্ছেমতো ঢুকে পড়বে আর সন্ত্রাস তৈরি করবে?

তাঁর আরও বক্তব্য, গুজবে কান দেবেন না, নাগরিকত্ব আইন দেশের স্বার্থে আনা হয়েছে। প্রকৃত উদ্বাস্তু ও অনুপ্রবেশকারীদের মধ্যে এই আইন পার্থক্য গড়ে দেবে। এই অনুপ্রবেশকারীরা দেশের নিরাপত্তার পক্ষে বিপদ, বিজয়বর্গীয় বলেছেন।

Loading...