মিয়ানমার সেনাবাহিনীর গুলিতে দুই রোহিঙ্গা নারী নিহত

৪:০২ অপরাহ্ণ | শনিবার, জানুয়ারি ২৫, ২০২০ আন্তর্জাতিক
mym

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ দুই রোহিঙ্গা নারীকে গুলি করে হত্যা করেছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরও সাতজন। শনিবার (১৫ জানুয়ারি) রাখাইন রাজ্যের নিক তাং গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। গ্রাম প্রধানের বরাতে এ খবর নিশ্চিত করেছে আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা রয়টার্স।

মিয়ানমানের স্থানীয় একজন আইনপ্রণেতা ও রাখাইনের একজন বাসিন্দা জানিয়েছেন, শনিবার (২৫ জানুয়ারি) রোহিঙ্গাদের একটি গ্রামে দেশটির সেনাদের কামানের গুলিতে এক অন্তঃসত্ত্বাসহ দুই রোহিঙ্গা নারী নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে আরও সাতজন। এ ব্যাপারে সেনাবাহিনীর কোনও মন্তব্য পাওয়া যায়নি। জাতিসংঘের সর্বোচ্চ আদালত রোহিঙ্গাদের সুরক্ষা নিশ্চিতের নির্দেশ দেওয়ার দুই দিনের মাথায় এমন ঘটনার কথা জানা গেলো।

উত্তরাঞ্চলীয় রাখাইন রাজ্যের বুথিডাং জনপদের সংসদ সদস্য মাউং কিয়া জান বলেন, মধ্যরাতের দিকে নিক তাং গ্রামে কাছের একটি ব্যাটালিয়ন থেকে গুলি চালানো হয়েছে।

রয়টার্সকে মোবাইল ফোনে মাউং কিয়া জান জানান, এখন সেখানে কোনো লড়াই চলছে না। কিন্তু কোনো প্রকার লড়াই ছাড়াই সেখানে সেনা সদস্যরা গুলি চালায়। চলতি বছরের মধ্য মিয়ানমার সেনা কর্তৃক দ্বিতীয়বারের মতো বেসামরিক লোকদের হত্যা করা হল বলেও জানান তিনি।

তবে বিনা কারণে গুলি চালানোর কথা অস্বীকার করেছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। তাদের পক্ষ থেকে বলা হয়, ভোরে বিদ্রোহীরা একটি সেতুতে হামলা চালিয়েছে। যার প্রেক্ষিতে তারা গুলি চালায়।

হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় রয়টার্সের পক্ষ থেকে সামরিক বাহিনীর দুইজন মুখপাত্রের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও তারা এ ব্যাপারে কোনও মন্তব্য করেননি। অন্যদিকে ওই গ্রাম থেকে এক কিলোমিটার দূরে বসবাসকারী এক রোহিঙ্গা ব্যক্তি সো তুন ওঁ বলেন, বিস্ফোরণে দুইটি বাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার জাতিসংঘের সর্বোচ্চ বিচারালয় আইসিজের প্রেসিডেন্ট বিচারপতি আবদুল কাফি আহমেদ ইউসুফ রোহিঙ্গাদের সুরক্ষা নিশ্চিতে চারটি অন্তর্বর্তীকালীন আদেশ ঘোষণা করেন। এতে গণহত্যা বন্ধ করে তাদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে আদেশ দেওয়ার মাত্র দুই দিনের মাথায় দুই রোহিঙ্গা নারীকে হত্যা করা হলো।

Loading...