শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষে রণক্ষেত্র পঞ্চগড়ের ভজনপুর, রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ

২:১৬ অপরাহ্ণ | রবিবার, জানুয়ারি ২৬, ২০২০ দেশের খবর, রংপুর

নাজমুস সাকিব মুন, পঞ্চগড় প্রতিনিধি- পঞ্চগড়ের ভজনপুরে মাটি খনন করে পাথর উত্তোলনের দাবিতে রোববার (২৬ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ৯ টায় থেকে পঞ্চগড়-তেতুলিয়া মহাসড়কের ভজনপুর এলাকায় অঘোষিতভাবে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করতে থাকে পাথর উত্তোলনকারী শ্রমিকরা।

একপর্যায়ে পুলিশের উপর ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে বিক্ষোভকারীরা। ভাংচুর করা হয় পুলিশের গাড়ি। শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষে এসময় গোটা এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। পরিস্থিতি সামাল দিতে তাৎক্ষণিকভাবে ৩ রাউন্ড টিয়ারসেল ও ৮ রাউন্ড রাবার বুলেট ছুড়েছে পুলিশ।

এ ঘটনায় গণমাধ্যমকর্মীসহ বেশ কয়েকজন আহত হয়। ছবি তোলার সময় গণমাধ্যমকর্মীদের বাধা দেয় ও অবরুদ্ধ করে মোবাইল ও ক্যামেরা ফুটেজ মুছে ফেলতে বাধ্য করে শ্রমিকরা।

বর্তমানে ভজনপুর এলাকায় শ্রমিক-পুলিশের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। ইতিমধ্যে বিপুল সংখ্যক পুলিশ ও বিজিবি মোতায়েন রয়েছে। পুলিশের পক্ষ থেকে সাধারণ জনতাকে নিরাপদ দূরত্বে থাকতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, দেশের প্রান্তিক জেলা হিসেবে এ এলাকায় কোন কল কারখানা ও জনসাধারণের কর্মসংস্থান না থাকায় স্বাধীনতার পর থেকেই জেলার তেঁতুলিয়া উপজেলার দরিদ্র মানুষেরা নদী থেকে ও ভূমি খনন করে নুড়ি পাথর উত্তোলন করে জীবিকা নির্বাহ করছিল। কিন্তু গত দুই দশক থেকে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী অবৈধ ভাবে ড্রেজার মেশিন দিয়ে পাথর উত্তোলন করায় স্থানীয়দের মধ্যে ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ ঘটে।

ড্রেজার মেশিন চললে অল্প কিছুদিনের মধ্যে লক্ষ লক্ষ মানুষ কর্মহীন হওয়ার আশঙ্কায় এলাকার সাধারণ পাথর শ্রমিক, পরিবেশকর্মী, সুশীল সমাজ ড্রেজারের বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়ে তোলে। এমনকি এ আন্দোলনে শ্রমিক নিহতের মত ঘটনাও ঘটে। তারই ধারাবাহিকতায় সরকারি আদেশক্রমে খনিজ সম্পদ রক্ষায় ড্রেজার মেশিন বন্ধসহ ভূমি খনন করে পাথর উত্তোলন বন্ধ ঘোষণা করে প্রশাসন।

এদিকে পাথর উত্তোলন বন্ধ থাকায় গত ছয় মাস থেকে লক্ষ লক্ষ মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছে। তাদের দাবি, যেভাবেই হোক পাথর উত্তোলন করতে হবে। কিন্তু প্রশাসন অবিচল, কিছুতেই পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট করে পাথর উত্তোলন করতে দিবেনা।