• আজ ১৮ই চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

পিস্তল নিয়ে টিকটক ভিডিও বানিয়েছিলেন পাপিয়া!

১১:৪৪ অপরাহ্ণ | রবিবার, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২০ আলোচিত বাংলাদেশ
papiya

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ রাজধানীর গুলশানের অভিজাত হোটেল ওয়েস্টিনে প্রেসিডেন্ট স্যুট নিজের নামে সবসময় বুকড করে নানা ধরনের অসামাজিক কার্যকলাপ চালিয়ে যাচ্ছিলেন শামীমা নূর পাপিয়া ওরফে পিউ নামে এক নারী।

পাপিয়া নরসিংদী জেলা যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদিকা। আর যুব মহিলা লীগের পদ বাগিয়ে অভিজাত এলাকায় জমজমাট নারী ব্যবসাসহ ভয়ঙ্কর সব অপরাধমূলক কর্মকান্ডে জড়িত ছিলেন তিনি।

সম্প্রতি র‍্যাবের হাতে আটক হওয়া পাপিয়ার পিস্তলসহ একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। শনিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর দিয়ে নয়াদিল্লিতে যাওয়ার সময় বহির্গমন গেট থেকে মফিজুর ও সাব্বিরকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব-১)। পরে তার বাসায় অভিযান চালিয়ে অস্ত্র, মদসহ বিপুল পরিমাণ অবৈধ টাকা উদ্ধার করে র‍্যাব।

এদিকে রোববার সন্ধ্যায় কারওয়ানবাজারে মিডিয়া সেন্টারে ব্রিফিংয়ে র‍্যাব জানায়, উদ্ধার হওয়া পিস্তলের বৈধ কাগজপত্র তারা দেখাতে পারেননি।

র‌্যাব-১ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল শাফী উল্লাহ বুলবুল বলেন, প্রত্যেকটা পিস্তলের গায়ে দুই জায়গায় ‘বডি নম্বর’ থাকে। লাইসেন্সের বিপরিতে ডিসি অফিসে নম্বরটা রেজিস্ট্রি করতে হয়। কিছু একটা দিয়ে ঘষে ওই পিস্তলের নম্বরটা উঠিয়ে ফেলা হয়েছে। তাদের কাছে এই পিস্তলের পক্ষে কোনো কাগজ নাই, কাগজ থাকলেও এটা অবৈধ হয়ে গেছে; যখনই এই নম্বর উঠিয়ে ফেলা হয়েছে। ধাতব কিছু দিয়ে নম্বরগুলো ঘষে ফেলা হয়েছে।

এদিকে উদ্ধার হওয়া পিস্তলটি নিয়ে একটি টিকটক ভিডিও বানান পাপিয়া। এতে ‘গোলাবি আখে’ শিরোনামের একটি হিন্দি গানে পারফর্ম করতে দেখা যায় তাকে। পাপিয়া গ্রেফতার হওয়ার পর ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোতে ভাইরাল হয়।

গ্রেফতারের পর পাপিয়াকে আজীবনের জন্য বহিষ্কার করেছে যুব মহিলালীগ। রোববার (২৩ ফেব্রুয়ারি) সংগঠনটির সভাপতি নাজমা আক্তার এবং সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক অপু উকিল স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ যুব মহিলা লীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী নরসিংদী জেলা যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক শামিমা নুর পাপিয়াকে সংগঠনের গঠনতন্ত্রের ২২ (ক) উপধারা অনুযায়ী দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে আজীবনের জন্য বহিষ্কার করা হলো।

Loading...