• আজ মঙ্গলবার, ১২ শ্রাবণ, ১৪২৮ ৷ ২৭ জুলাই, ২০২১ ৷

‘যারা মোদির সফর বন্ধ করতে চায় তারা দেশের ভালো চায় না’- শাহরিয়ার কবির

kanir
❏ শনিবার, মার্চ ৭, ২০২০ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির বলেছেন, ভারতের সাম্প্রতিক ঘটনাকে নিয়ে যারা নরেন্দ্র মোদীর সফর বন্ধ করতে আন্দোলন করছে তারা দেশের ভালো চায় না। এর মাধ্যমে তারা বাংলাদেশ ও ভারতের মৈত্রীকে অসম্মান করতে চায়, মুজিববর্ষে অনুষ্ঠানকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে চায়।

রাজধানীর ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সাগর-রুনি মিলনায়তনে শনিবার একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি আয়োজিত সংবাদ সম্মেলন থেকে এ জানানো হয়। এতে আরও বক্তব্য রাখেন- শিল্পী হাশেম খান, সাবেক বিচারপতি এএইচ শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক, সংগঠনটির সহ-সভাপতি মুসনতাসির মামুন।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির উপদেষ্টা আমজাত হোসেন, শ্যামলী চৌধুরী নাসরিন প্রমুখ।

শাহরিয়ার কবির বলেন, আগামী ১৭ মার্চ মুজিববর্ষ পালন করবে বাংলাদেশ। এই অনুষ্ঠানে যোগ দেয়ার জন্য আসবেন বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় বন্ধু রাষ্ট্র, ১৯৭১ যাদের অসামান্য অবদানের কথা ভুলবার নয়। সে দেশের প্রধানমন্ত্রীর সফর এই অনুষ্ঠানকে আরও সাফল্য মণ্ডিত করবে। এই অনুষ্ঠানের সঙ্গে ভারতের সাম্প্রতিক কোনো বিষয় কাজ করে না। এই সফর বন্ধুত্বের, জাতির পিতাকে সম্মান জানানোর।

এসময় ভারতের কলকাতা ও দিল্লীতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে সড়ক রয়েছে উল্লেখ করে তিনি মহান মুক্তিযুদ্ধে ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী ও অটল বিহারী বাজপেয়ীয় অসামান্য অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ তাদের নামে ঢাকার দুটি গুরুত্বপূর্ণ রাস্তরার নামকরণের দাবি জানান।

মুনতাসির মামুন বলেন, মুজিববর্ষ নিয়ে অনেকেই বাড়াবাড়ি করছেন। দেশের প্রতিটি জেলাতে আজ বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল স্থাপন করা হয়েছে। এসবের চেয়ে যদি একটি করে ডিজিটাল স্কুল তৈরি করা যেতো তাহলে অনেকেই উপকৃত হতেন। মুজিব শতবর্ষ পালন হচ্ছে অথচ তার জীবনী নিয়ে ১০০ পৃষ্ঠার কোনো লেখা পাই না। বিশ্বে আজ সাম্প্রদায়িক, অশান্তি শুরু হয়েছে। এ অবস্থায় সাম্প্রদায়িক সম্প্রতির নিদর্শন হিসেবে সরকারের প্রতি এক কোটি টাকার মুজিব শান্তি পুরস্কার ঘোষণা করার দাবি জানান তিনি।

শিল্পী হাশেম খান বলেন, মুজিববর্ষ নিয়ে ম্যুরাল করে অতি বাড়াবাড়ি করা হয়েছে। এসব ভেঙে ফেলা উচিত, কারণ কোনো ম্যুরাল তৈরি করতে সময়, উদ্দেশ্যর প্রয়োজন এটা কোনোটাই নেই। অতিবাড়াবাড়ি মানে জাতির পিতাকে অপমান করা।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন