• আজ মঙ্গলবার, ১৯ শ্রাবণ, ১৪২৮ ৷ ৩ আগস্ট, ২০২১ ৷

গয়নাগাটি-লাল শাড়ি সবই আছে, শুধু সুইটির প্রাণটাই নেই


❏ সোমবার, মার্চ ৯, ২০২০ দেশের খবর, রাজশাহী

সময়ের কণ্ঠস্বর, রাজশাহী- গায়ের গয়নাগাটি সবই আছে। লাল শাড়ি জড়ানো শরীরটাতে শুধু প্রাণটাই নেই। তিনি নববধূ সুইটি খাতুন পূর্ণিমা (২০)।

নতুন জীবন শুরুর আগেই নববধূ সুইটি খাতুনকে কেড়ে নিলো পদ্মা। ডুবে গেল তার জীবনের সব সাজানো স্বপ্ন। রাজশাহীর পদ্মায় নৌকাডুবির ঘটনায় নিখোঁজ কনের মরদেহও উদ্ধার করা হয়েছে।

রাজশাহীর নৌ-পুলিশের পবা ফাঁড়ির ইনচার্জ মেহেদী মাসুদ খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। এ নিয়ে পদ্মা নদীতে নৌকাডুবির ঘটনায় নিহত নয়জনের লাশ উদ্ধার করা হলো। দুটি নৌকার ৪১ জন যাত্রীর মধ্যে আজ নববধূর লাশ উদ্ধারের মাধ্যমে নিখোঁজ সবার লাশ পাওয়া গেল।

সুইটির লাশ উদ্ধারের মধ্যদিয়ে চারদিনের উদ্ধার অভিযান শেষ হতে যাচ্ছে জানিয়ে ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন অফিসার জানান, নৌকাডুবির ঘটনায় এ পর্যন্ত যাদের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে তারা হলেন- শিশু রুবাইয়া, সুইটির চাচা শামীম হোসেন, তার স্ত্রী মনি খাতুন, তাদের মেয়ে রসনি খাতুন, কনের খালাতো ভাই এখলাক হোসেন, দুলাভাই রতন আলী, তার মেয়ে মরিয়ম খাতুন।

কনে সুইটি রাজশাহীর পবা উপজেলার ডাঙেরহাট গ্রামের শাহিন আলীর মেয়ে। দেড় মাস আগে পদ্মার ওপারে একই উপজেলার চরখিদিরপুর গ্রামের ইনসার আলীর ছেলে রুমন আলীর সঙ্গে তার বিয়ে হয়। কিন্তু তখন অনুষ্ঠান হয়নি। সেজন্য গত বৃহস্পতিবার কনের বাড়িতে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠান শেষে ফেরার পথে বর-কনে গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মাঝপদ্মায় ডুবে যায় বর-কনে ও তাদের স্বজন মিলে ৪১ জনকে বহনকারী দুটি নৌকা। তখন থেকেই ফায়ার সার্ভিস, বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ, নৌ-পুলিশ ও বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ যৌথভাবে উদ্ধার অভিযান চালায়।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন