• আজ মঙ্গলবার, ১২ শ্রাবণ, ১৪২৮ ৷ ২৭ জুলাই, ২০২১ ৷

করোনাভাইরাসঃ মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪৬০১, আক্রান্ত ১ লাখ ২৬ হাজার

coronavirus-photo
❏ বৃহস্পতিবার, মার্চ ১২, ২০২০ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে সারা বিশ্বে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা ক্রমেই বাড়ছে। এতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪৬০১ জনে দাঁড়িয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ২৬ হাজার ২৬৪ জন।

চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশনের বরাত দিয়ে আজ বৃহস্পতিবার স্থানীয় সংবাদমাধ্যম দ্য চায়না মর্নিং পোস্ট জানিয়েছে, ‘বিশ্বের অন্তত ১১৪টি দেশে ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৩৪৩ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৪৬০১ জনের। আক্রান্ত হয়েছে আরও ৬ হাজারেরও বেশি মানুষ। যা নিয়ে বর্তমানে ১ লাখ প্রায় ২৩ হাজার মানুষ ভাইরাসটিতে আক্রান্ত।’

এর মধ্যে মূলভূখন্ড চীনে নতুন করে ৩৩ জন প্রাণ হারিয়েছেন। এ নিয়ে সেখানে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৩ হাজার ১৬৯ জন। আর নতুন করে ৩৬ জন আক্রান্ত হওয়ায় সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮০ হাজার ৭৯৩ জনে। সুস্থ বাড়ি ফিরেছেন এখন পর্যন্ত ৬৭ হাজারের বেশি নাগরিক।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ইতালিতে নতুন করে ১৯৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। দেশটিতে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮২৭ জন।

বিশ্বব্যাপী ১২৪টি দেশ ও অঞ্চলে এ ভাইরাসের আক্রান্তের সংখ্যা এখন এক লাখ ২৬ হাজার ২৬৪ জন। তবে, এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর সুস্থ হয়েছেন ৬৮ হাজার ২৮৫ জন।

ইরানে নতুন করে ৬৩ জনসহ মৃতের সংখ্যা ৩৫৪ জন। নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ৯৫৪ জন। এছাড়া, যুক্তরাজ্যে নতুন ২ জনসহ মৃত্যু হয়েছে আটজনের। নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৪৫৬ জন।

স্পেনে নতুন করে মৃত্যু হয়েছে ১৯ জনের। মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৫ জন। ভাইরাসটির উৎপত্তিস্থল চীনে আরও ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে।

আয়ারল্যান্ড ও বুলগেরিয়ায় করোনায় আক্রান্ত প্রথম মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। অন্যদিকে, আইভরিকোস্টে নতুন করে করোনাভাইরাস আক্রান্তের খবর পাওয়া গেছে।

বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত ৩ জনের দেহে ভাইরাসটির সংক্রমণ পাওয়া গেছে। তবে দুই জনের অবস্থার উন্নতি হয়েছে বলে স্বাস্থ্য বিভাগের বরাত দিয়ে জানানো হয়েছে। আর দেশের বিভিন্ন জেলায় ‘হোম কোয়ারেন্টাইনে’ আছেন অন্তত ২১০ জন।

এমন পরিস্থিতিতে ভাইরাসটিকে মহামারি আকার ঘোষণা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। বুধবার রাতে সংস্থার প্রধান টেড্রোস অ্যাডানোম গ্রেবিয়াসিস জানান, গত দুই সপ্তাহে ভাইরাসটি চীনের বাইরে ১৩ গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে।

দ্রুত গতিতে করোনা ভাইরাসের বিস্তার হতে থাকায় গত ৩০ জানুয়ারিতে বিশ্বজুড়ে জরুরি স্বাস্থ্য পরিস্থিতি ঘোষণা করে ডব্লিউএইচও। ওই সময়ে সংস্থাটির প্রধান জানান, এর মাধ্যমে দুর্বল স্বাস্থ্য সেবার দেশগুলোকে সুরক্ষা দেওয়া এবং তাদের জন্য প্রস্তুতি নেওয়া হবে বলে জানানো হয়।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন