সংবাদ শিরোনাম

ঠাকুরগাঁওয়ের আলোচিত সেই লিচু গাছ পরিদর্শনে ইউএনও ও কৃষি অফিসারসালথায় তান্ডব: সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান পাঁচ দিনের রিমান্ডেকরোনায় একদিনে আরও ৯৮ জনের মৃত্যুনিউমাকের্ট থেকে হেফাজতের আরও এক নেতা গ্রেফতারমেলান্দহে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন, ড্রেজার মেশিনে আগুন দিয়ে ধ্বংসউৎপাদন বাড়াচ্ছি, শিগগিরই বাংলাদেশ টিকা পাবে: দোরাইস্বামীশরীয়তপু‌রে পা‌রিবা‌রিক দ্ব‌ন্দে স্ত্রীর ওপর অভিমান করে স্বামীর আত্মহত্যামাগুরায় কৃষি পণ্য উৎপাদনে জনপ্রিয় হচ্ছে ‘চাঁদের হাট’ সমন্বিত কৃষি খামার প্রকল্পহেফাজতের যুগ্ম-মহাসচিব খালেদ সাইফুল্লাহ আইয়ূবী গ্রেপ্তারকরোনার তৃতীয় ঢেউ নিয়ে সতর্ক করলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

  • আজ বৃহস্পতিবার। গ্রীষ্মকাল, ৯ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ। ২২শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ। সন্ধ্যা ৬:১৪মিঃ

বেতন বন্ধ কুড়িগ্রামের সেই সাবেক ডিসিসহ অভিযুক্তদের

⏱ | বৃহস্পতিবার, মার্চ ২৬, ২০২০ 📁 আলোচিত বাংলাদেশ

সময়ের কন্ঠস্বর ডেস্ক: সাংবাদিক নির্যাতনের দায়ে ওএসডি হওয়া কুড়িগ্রামের সাবেক জেলা প্রশাসকসহ চার কর্মকর্তার বেতন বন্ধ রয়েছে। এছাড়া তাদের বিরুদ্ধে বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। একই সঙ্গে মন্ত্রণালয় থেকে তাদের কারণ দর্শানোর নোটিশও দেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

মন্ত্রী বলেন, তাদের (ডিসিসহ চার ককর্মকর্তা) বিভাগীয় নিয়ম অনুযায়ী শুনানির সম্মুখীন করা। দোষের পরিমাণ ও আইন অনুসারে তাদের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, শুনানি শেষ হলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। নাজিমুদ্দিনসহ দুই-তিন জনের বিরুদ্ধে কঠিন ব্যবস্থা নেয়া হবে। আমাদের তদন্ত শেষে দুদককেও বলবো তাদের দুর্নীতি তদন্ত করার জন্য।

প্রসঙ্গত, চলতি মাসের ১৩ তারিখ মধ্যরাতে এক সাংবাদিকের বাড়ির দরজা ভেঙে তাঁকে ধরে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে তাকে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে এক বছরের কারাদণ্ড দেয় জেলা প্রশাসন। কারণ হিসেবে তার ঘরে আধা বোতল মদ ও দেড়শ গ্রাম গাঁজা পাওয়া গেছে বলে জানানো হয়।

আরিফুল নামে ওই সাংবাদিক অনলাইন নিউজ পোর্টাল বাংলা ট্রিবিউনের কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি।ওই ঘটনা দেশ জুড়ে ব্যাপক সমালোচনার মুখে তৎক্ষণাৎ জেলার ডিসি মোছা. সুলতানা পারভীনকে প্রত্যাহার করা হয়। পরে তিনিসহ অপরাধে যুক্ত নাজিমুদ্দিনসহ আরও তিন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।