সংবাদ শিরোনাম
করোনায় ঢাকার সাবেক এমপি মকবুলের মৃত্যু | বরিশালে ঘূর্ণিঝড়ে বিধ্বস্তদের ঘর মেরামত করে দিলেন সেনাবাহিনী | এবার প্রবাসীদের বাড়িতে ঈদ উপহার পাঠালেন মাশরাফি | ইতালিতে ঈদুল ফিতর উদযাপন করলেন ২৫ লাখ মুসল্লি | করোনাকালে “এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট” হিসেবে দায়িত্ব পালনের গল্প | ঠাকুরগাঁওয়ে কর্মহীনদের ঈদ উপহার দিল সেনাবাহিনী | করোনা চিকিৎসায় ১৩টি হাসপাতালে রেমডেসিভির সরবরাহ শুরু | কৃষকদের ধান কেটে দেওয়ায় ছাত্রলীগকে প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন | জীবিকার স্বার্থে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড চালু করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী | “পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত সরকারি সহায়তা অব্যাহত থাকবে” |
  • আজ ১১ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

করোনা সন্দেহে রংপুরে পাঠানো সেই পাঁচজনকে ঠাকুরগাঁওয়ে স্থানান্তর

১২:৫৫ পূর্বাহ্ণ | সোমবার, মার্চ ৩০, ২০২০ রংপুর
tg

কামরুল হাসান, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি: ঠাকুরগাঁওয়ের একই পরিবারের অসুস্থ্য ৫ জনকে রংপুর থেকে ফেরত পাঠিয়েছে কর্তৃপক্ষ। তাদের বর্তমানে ঠাকুরগাঁও সদর হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে রাখা হয়েছে।

রবিবার রাতে তাদের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি রাখা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডাঃ মোঃ রকিবুল আলম। তাদের প্রত্যেকের অবস্থা আগের চেয়ে উন্নতির দিকে বলেও জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, ঠাকুরগাঁওয়ের সদর উপজেলার চিলারং ইউনিয়নে আড়াই বছরের এক শিশুসহ একই পরিবারের ৫ জন জ্বর ও শ্বাসকষ্টজনিত রোগে আক্রান্ত হয়। স্থানীয় প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগের লোকজন তাদেরকে শনিবার সন্ধ্যায় পরিক্ষা নিরিক্ষার পর উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজে পাঠায়। এর শরীরে জ্বর নিয়ে ঢাকা থেকে ট্রেন যোগে ঠাকুরগাঁওয়ে এসে পাঁচদিন ধরে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার চিলারং ইউনিয়নে তার নিজ বাসায় অবস্থান করছিলেন ওই পরিবারের কর্তাব্যক্তি। বাসায় আসার পর তার শরীরে জ্বরের তীব্রতা আরও বেড়ে যায়। এর সঙ্গে শ্বাসকষ্ট ও পাতলা পায়খানা শুরু হয়। একই সমস্যা দেখা দেয় তার স্ত্রী ও ছোট্ট শিশু সন্তানটিরও।

আক্রান্ত হওয়া ব্যক্তির বরাতে স্থানীয় স্বাস্থ্য বিভাগ জানান, ঢাকা থেকে ফেরার পূর্বে সেখানে লোকজনের সাথে একটি পিকনিকে অংশ নিয়েছিলেন ওই আক্রান্ত ব্যক্তি। পিকনিকে অংশ নেয়া ব্যক্তিদের মধ্যে কারো সংস্পর্শে আসার পরই তিনি জ্বরে আক্রান্ত হন।

এ বিষয়ে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালের আরএমও ডাঃ মোঃ রকিবুল আলম জানান, রংপুর মেডিকেলে পাঠানোর পর তাদের নমুনা সংগ্রহ করে আইইডিসিআর এর সদস্যরা। নমুনা তারা ঢাকায় প্রেরণ করেছে ঢাকা থেকে রিপোর্ট আসার পর তাদের বিষয়ে করণীয় বলা যাবে। বর্তমানে পরিবারের ৫ জনকে সদরের আইসোলেশন ওয়ার্ডে রাখা হয়েছে। আগের চেয়ে তারা এখন কিছুটা সুস্থ্য রয়েছে।