সংবাদ শিরোনাম

জাল বিমান টিকিট, জাল ভিসাসহ মানব পাচারকারী গ্রেপ্তারসালথায় তান্ডব: সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান গ্রেপ্তারপটুয়াখালীতে পরিত্যক্ত ড্রোন উদ্ধার, মালিকানা দাবি বেলজিয়াম নাগরিকের৪ দিন পর একশোর নিচে মৃত্যুপ্রবাসীর স্ত্রীর মরদেহ উদ্ধার; পরিবারের দাবি পরিকল্পিতভাবে হত্যাস্বামী ঘুমে, স্ত্রী ঝুলে আছে ফাঁসির রশিতেহেফাজতের প্রতি দুর্বলতা দেখানোর সুযোগ নেই: নানকমাদারীপুর সদর হাসপাতালে টিকার জন্যে দীর্ঘ লাইন, স্বাস্থ্যবিধির বালাই নেইঅ্যাডিশনাল এসপি শামিম আমার গায়ে হাত তুলেছে: কাদের মির্জাকোভিড ভ্যাকসিনকে বিশ্বজনীন পণ্য হিসেবে ঘোষণা করা উচিত: প্রধানমন্ত্রী

  • আজ মঙ্গলবার। গ্রীষ্মকাল, ৭ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ। ২০শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ। বিকাল ৫:৫১মিঃ

বিশ্বের প্রথম করোনা রোগীর পরিচয় ফাঁস!

১২:০৫ পূর্বাহ্ন | মঙ্গলবার, মার্চ ৩১, ২০২০ আন্তর্জাতিক
uhan

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ চীনের উহান থেকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়েছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। এই ভাইরাসে বিশ্বে সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে ইউরোপে। প্রতি মুহূর্তে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা।

সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী বিশ্বের ৭ লাখ ৫২ হাজার ৭৪৭ জন মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে মৃত্যু বরণ করেছেন ৩৬ হাজার ২২৬ জন মানুষ। চিকিৎসা গ্রহণের পর সুস্থ হয়ে উঠেছেন এক লাখ ৫৮ হাজার ৭৬৯ জন।

বিজ্ঞানীরা ধারনা করছেন চীনের হুবেই প্রদেশের উহান থেকে ছড়িয়েছে এই ভাইরাস। এক্ষেত্রে তারা হন্যে হয়ে খুঁজছিলেন সেই রোগীকে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত প্রথম রোগীকে। তারা মনে করেন ‘পেশেন্ট জিরো’ রোগীকে ভালভাবে পরীক্ষা করলে প্রতিরোধের উপায় এবং ভ্যাকসিন বের করা সহজ হবে। অবশেষে মিলেছে সেই পেশেন্ট জিরো রোগী।

ইন্ডিয়া টাইমস জানায়, প্রথম করোনায় আক্রান্ত হচ্ছে ৬৭ বছর বয়সী এক চীনা মহিলা। নাম ওয়েই গুইশিয়ান। তিনি চীনের উহান শহরের বাজারে চিংড়ি মাছ বিক্রি করতেন। ওয়েই গুইশিয়ান ডিসেম্বরে ওই রোগে আক্রান্ত হন। প্রায় মাসখানেক হাসপাতালে চিকিৎসার পরে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফেরেন।

তিনি সম্প্রতি বলেছেন, চীনের সরকার যদি আরও আগে করোনাভাইরাসের বিপদটা বুঝতে পারত, তাহলে এই অতিমহামারি হত না।

আমেরিকার ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল জানিয়েছে, ওয়েই গুয়েইশিন গত ১০ ডিসেম্বর হুনান সি ফুড মার্কেটে চিংড়ি বিক্রি করার সময় অসুস্থ হয়ে পড়েন। প্রথমে ভেবেছিলেন, ঠান্ডা লেগেছে। ফ্লুর মতো কোনও রোগ হয়েছে। তিনি স্থানীয় স্বাস্থ্যকেন্দ্রে গিয়েছিলেন। সেখানে তাকে ইঞ্জেকশান দিয়েছিল। কিন্তু তাতে রোগ সারেনি। বরং তিনি খুব দুর্বল হয়ে পড়েছিলেন। তার ধারণা হয়েছিল, ফ্লু নয়, আরও গুরুতর কোনও রোগে আক্রান্ত হয়েছেন তিনি।

একদিন পরে ওয়েই গিয়েছিলেন উহানের ইলেভেন্থ হাসপাতালে। এর পরেও তার দুর্বলতা কমেনি। ১৬ ডিসেম্বর তিনি যান উহান ইউনিয়ন হাসপাতালে। সেখানে গিয়ে দেখেন, সি ফুড মার্কেট থেকে আরও অনেকে এসেছেন। তাদের প্রত্যেকের শরীরে তার মতোই রোগের লক্ষণ ফুটে উঠেছে।

উহান মিউনিসিপ্যাল হেলথ কমিশনের তরফে নিশ্চিত করে বলা হয়েছে যে, প্রথম করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন যে ২৭ জন রোগী তাঁদের মধ্যে প্রথমেই ছিলেন ওয়েই গুইশিয়ান।

চীনের এক সংবাদপত্রের রিপোর্টে জানা যায়, ডিসেম্বরের শেষে ওয়েইকে কোয়ারান্টাইন করা হয়। ততদিনে সবাই জানতে পেরেছে করোনাভাইরাস আক্রমণ করেছে মানবজাতিকে।