সংবাদ শিরোনাম

হাসিনা-মোদির সুসম্পর্কের কারণেই টিকা এসেছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রীনিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ঘরে ঢুকে পড়ল ট্রাক, প্রাণ গেল ঘুমন্ত ব্যক্তিরটাঙ্গাইলে নারীর গোসলের ভিডিও ধারণকারী ছাত্রলীগ নেতা কারাগারেভূঞাপুর পৌর নির্বাচনঃ সকালে ব্যালট সামগ্রী পাঠাতে স্বতন্ত্র প্রার্থীর আবেদনপদ্মা সেতুর নাম ‘শেখ হাসিনা সেতু’র প্রস্তাবে প্রধানমন্ত্রীর নাহাতীবান্ধায় ব্রিজ নির্মাণে খুশি চরাঞ্চলের হাজার মানুষআবারও পপির বিয়ের গুঞ্জন৮ ফেব্রুয়ারি থেকে সারা দেশে টিকাদান শুরু: স্বাস্থ‌্যমন্ত্রীমিরপুরে ডিএনসিসির উচ্ছেদে বাধা, পুলিশের সঙ্গে স্থানীয়দের সংঘর্ষবৃদ্ধাকে নির্যাতনকারী ভয়ঙ্কর সেই গৃহকর্মী ঠাকুরগাঁওয়ে গ্রেপ্তার

  • আজ ৭ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

করোনাঃ শুধু ইউরোপেই মৃত্যু ৩০ হাজার ছাড়াল

◷ ১১:৩৭ অপরাহ্ন ৷ বুধবার, এপ্রিল ১, ২০২০ আন্তর্জাতিক
euro

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে ব্যর্থ সারা বিশ্ব। যত দিন যাচ্ছে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর মিছিল তত লম্বা হচ্ছে। বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা ৪৫ হাজার ছাড়াল। এর মধ্যে শুধু ইউরোপেই ৩০ হাজারের বেশি মানুষের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে করোনা।

বুধবার বৈশ্বিক এক হিসাবের বরাতে এ তথ্য দিয়েছে ফ্রান্সভিত্তিক বার্তা সংস্থা এএফপি। বাংলাদেশ সময় বুধবার রাত ১১টা পর্যন্ত ওয়ার্ল্ডোমিটারসের তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৯ লাখ ৩ হাজার ৮১৯ জন। করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৪৫ হাজার ৩৩৪ জনের। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১ লাখ ৯০ হাজার ৬৮৪ জন।

এর মধ্যে শুধু ইউরোপেই মৃত্যু ৩০ হাজার ছাড়িয়েছে। চীন ও ইরানের পর করোনাভাইরাস মূল আঘাতটি হানে ইতালিতে। তবে করোনার কেন্দ্র এখন ইতালি থেকে সরে ক্রমশ স্পেনের দিকে যাচ্ছে। স্পেন এখন বিশ্বের তৃতীয় দেশ যেখানে এক লাখের বেশি মানুষ এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, স্পেনে বুধবার মৃতের সংখ্যা মোট ৯ হাজার ছাড়িয়েছে। শুধু স্পেন ও ইতালিতেই মারা গেছেন ২০ হাজারের বেশি মানুষ। টানা পাঁচদিন স্পেনে ৮০০ বা তার চেয়ে বেশি মানুষ মারা গেছেন। তবে গোটা ইউরোপের অবস্থাই এখন শোচনীয়।

নেদারল্যান্ডসে ১ হাজার ছাড়িয়েছে। বেলজিয়ামে আটশ’র বেশি মানুষ মারা গেছেন। জার্মানিতেও আটশ’র কাছাকাছি মানুষ করোনাভাইরাসে মারা গেছেন। সুইজারল্যান্ডে পাঁচশ’র কিছু কম মানুষ মারা গেছেন।

তুরস্ক, সুইডেন ও পর্তুগালেও দেড়শ’র বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে এ বৈশ্বিক মহামারীতে। অস্ট্রিয়ায় মারা গেছেন শতাধিক মানুষ। ইউরোপ পুরো বিশ্ব থেকে কার্যত বিচ্ছিন্ন আছে।

ফ্রান্সের হাসপাতালগুলোতে আগের ২৪ ঘণ্টায় নতুন ৪৯৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশটিতে মোট মৃত্যুর সংখ্যা ৩,৫২৩। প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার পর থেকে দৈনিক মৃত্যুর হিসাবে এটিই ছিল ফ্রান্সে সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর ঘটনা।

বেলজিয়ামে ১২ বছর বয়সী এক শিশু মারা গেছে কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়ে। এটিকে ধারণা করা হচ্ছে করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়ে ইউরোপে সবচেয়ে কমবয়সী কারও মৃত্যু হিসেবে।

পরিস্থিতি যে আরও ভয়াবহ হতে পারে তা মার্কিন সংক্রামক ব্যাধি বিশেষজ্ঞ ড. অ্যান্থনি ফাউচির কথাতেই স্পষ্ট। গত রোববার তিনি সিএনএনকে বলেন, ‘এখন পর্যন্ত যে অবস্থা, তাতে শুধু যুক্তরাষ্ট্রেই মৃতের সংখ্যা ১ লাখ এমনকি ২ লাখও হতে পারে।’