• আজ ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

মাদারীপুরে সুস্থ হয়ে ফেরা দুজন নতুন করে করোনায় আক্রান্ত

৯:২৪ অপরাহ্ণ | সোমবার, এপ্রিল ৬, ২০২০ স্পট লাইট

সময়ের কন্ঠস্বর ডেস্ক: মাদারীপুর সদর হাসপাতাল থেকে পুরোপুরি সুস্থ হওয়ার ৯ দিনের মাথায় দুই ব্যক্তির শরীরে আবারো দেখা দিয়েছে করোনা ভাইরাসের উপসর্গ।

তাদের জরুরী ভিত্তিতে রাখা হয়েছে সদর হাসপাতালের আইসোলেশনে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জেলার স্বাস্থ্য বিভাগের একাধিক কর্মকর্তা।

জেলার স্বাস্থ্য বিভাগের সূত্র জানায়, করোনা ভাইরাস থেকে মুক্ত হওয়ার পর গত ২৭ মার্চ জেলা সদর হাসপাতাল থেকে একই পরিবারের ৫ জনকে রিলিজ দেয়া হয়। পরবর্তীতে তারা নিজ নিজ বাড়িতে অবস্থান করেন। কিন্তু তাদের মধ্যে দুইজনের শরীরে আবারো এই রোগের উপসর্গ দেখা দিলে আইইডিসিআর’এর টিম পুনরায় নমুনা সংগ্রহ করে।

দুইজনের শরীরে পুনরায় পজিটিভ রেজাল্ট পাওয়া যায়। ফলে দ্রুত তাদের সদর হাসপাতালের আইসোলেশনে নেয়া হয়। এদের একজন পুরুষ ও একজন নারী। এর বাইরে ভর্তি রয়েছেন আরো দুইজন। মোট ৪ জন রোগী মাদারীপুর সদর হাসপাতালের আইসোলেশনে রয়েছেন।

স্থানীয়রা জানান, সুস্থ হয়ে ওঠার পর হাসপাতাল থেকে বাড়িতে ফিরে প্রতিবেশীদের ডেকে মিলাদ পড়েন ওই তারা। তবে পরে নতুন করে তাদের শরীরে করোনার উপসর্গ প্রকাশ পায়।

এদিকে করোনা ভাইরাসের সর্বোচ্চ ঝুঁকি হিসেবে মাদারীপুর জেলাকে দেখা হচ্ছে সরকারের পক্ষ থেকে। এরমধ্যে শিবচর উপজেলাকে গুরুত্ব দিচ্ছে প্রশাসন। পরিস্থিতি বিবেচনা করে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের সিদ্ধান্ত মোতাবেক উপজেলার প্রবেশ ও বাহিরের সব পথ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

এজন্য সড়কের বিভিন্ন স্থানে তল্লাশি চৌকি ও বাঁশকল। উপজেলার সাথে সবদিকের যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। ফলে নতুন করে এই উপজেলায় কেউ প্রবেশ করতে পারবেন না। এমনকি কেউ বাইরেও যেতে পারবেন না।

মাদারীপুরের সিভিল সার্জন ডা. শফিকুল ইসলাম জানান, করোনা ভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে মাদারীপুর সদর হাসপাতালের আইসোলেশনে ভর্তি রয়েছে ৪জন। এদের মধ্যে দুইজন আগে চিকিৎসা নেয়া রোগী রয়েছেন।

মাদারীপুরের জেলা প্রশাসক ওয়াহিদুল ইসলাম বলেন, দিনে দিনে করোনা ভাইরাস দেশে ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। এজন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে সকল এলাকায় কঠোরভাবে মনিটরিং করা হচ্ছে। কি কারণে সুস্থ হওয়া রোগীর শরীরে আবারো এই ভাইরাসের সংক্রমণ দেখা দিয়েছে তা আইইডিসিআর ও স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা বলতে পারবেন। তবে, আর কারো মধ্যে যাতে এই ভাইরাস ছড়াতে না পারে এজন্য সবধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে।