🕓 সংবাদ শিরোনাম

কারাগারে বাড়তি নিরাপত্তায় বাবুল আক্তারসাংবাদিক রোজিনাকে হয়রানি ও হেনস্থার প্রতিবাদে রাঙামাটি প্রেসক্লাবের মানববন্ধনসাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে নির্যাতনের প্রতিবাদে টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের মানববন্ধনঝালকাঠিতে জমি নিয়ে বিরোধে কৃষককে কুপিয়ে হত্যা,আটক-২মাত্র ২০ ঘন্টায় ১০ লক্ষ দর্শক পেল“ তাকে ভালোবাসা বলে” নাটকটিবিয়ের কথা বলে প্রেমিকাকে তুলে নিয়ে রাতভর ধর্ষণভারতে করোনায় একদিনে মারা গেলেন ৫০ চিকিৎসকদেশে বিশেষ অভিযান চালাবে ইন্টারপোলসাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে নেওয়া হলো আদালতেতুমুল সমালোচনার মুখে ‘জেরুজালেম প্রেয়ার টিম’পেজ সরিয়ে নিল ফেসবুক কর্তৃপক্ষ

  • আজ মঙ্গলবার, ৪ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ ৷ ১৮ মে, ২০২১ ৷

নিউইয়র্কে গণকবরে ঠাঁই হচ্ছে মৃতদের

goni
❏ শনিবার, এপ্রিল ১১, ২০২০ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসের মহামারি সবচেয়ে ভয়াবহ রূপ নিয়েছে নিউইয়র্কে। সেখানে প্রতিদিন মারা যাচ্ছে শত শত মানুষ। মারা যাওয়া ব্যক্তিদের গণকবরে সমাহিত করা হচ্ছে। সম্প্রতি এমন ছবি সামনে এসেছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে যে, মৃত ব্যক্তিদের কফিন গণকবরে সমাহিত করা হচ্ছে। খবর বিবিসি’র।

প্রকাশিত ছবিতে দেখা যায়, হেলমেট পোশাক পরা কর্মীরা মৃতদেহ রাখা কফিনগুলো বড় একটি সারি সারি করে নামিয়ে রাখছে। হার্ট আইল্যান্ডে এই গণকবর খুড়ে তাদের সমাহিত করা হচ্ছে।

বিবিসি বাংলার এক প্রতিবেদনে বলা হয়, এই কবরস্থানটি হচ্ছে নিউইয়র্কের হার্ট আইল্যাণ্ডে। সাধারণত যেসব মৃত ব্যক্তির কোনো আত্মীয়-স্বজনের খোঁজ পাওয়া যায় না বা যাদের শেষকৃত্যানুষ্ঠানের খরচ দেওয়ার সাধ্য নেই; তাদেরকেই এখানে কবর দেওয়া হয়।

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের করোনাভাইরাস মহামারি এখন ভয়ংকর চেহারা নিয়েছে। বলা হচ্ছে, যুক্তরাষ্ট্রের এই একটি রাজ্যের আক্রান্ত মানুষের সংখ্যাই অন্য যে কোনো দেশের চেয়ে বেশি।

শুক্রবার পর্যন্ত পরিসংখ্যান অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৬১ হাজার ৫শ ৪। মারা গেছে ৭ হাজার ৮ শত ৪৪ জন।

হোয়াইট হাউসের করোনা ভাইরাস টাস্ক ফোর্সের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য ডক্টর অ্যান্থনি ফসি বলেন, ‘কোভিড-১৯ মহামারিতে ৬০ হাজার মার্কিন নাগরিক মারা যেতে পারে।’তবে মার্চ মাসের শেষেরদিকে তিনি বলেছিলেন, ‘আনুমানিক এক থেকে দুই লাখ মানুষের মৃত্যু হতে পারে।’

এর আগে হোয়াইট হাউস জানিয়েছিল, প্রতিরোধের জন্য যথাযথ উদ্যোগ না নিলে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে প্রায় ২২ লাখ মানুষ মারা যেতে পারে। ফলে দেশটির ৪২টি অঙ্গরাজ্যে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া মানুষকে বাড়িতে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এতে গত তিন সপ্তাহে দেশটিতে বেকার হয়ে পড়েছেন ১ কোটি ৬৮ লাখ মানুষ।