দেশে করোনার কমিউনিটি ট্রান্সমিশন শুরু হয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী


❏ সোমবার, এপ্রিল ১৩, ২০২০ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- দেশে কমিউনিটি পর্যায়ে করোনাভাইরাসের ট্রান্সমিশন শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। তিনি বলেন, ‘কমিউনিটি ট্রান্সমিশন শুরু হয়েছে। সেটি যেন ব্যাপকভাবে না ছড়ায় সে ব্যাপারে আমাদের সচেতন হতে হবে।’

সোমবার (১৩ এপ্রিল) দুপুরে দেশের কোভিড-১৯ সম্পর্কিত সার্বিক পরিস্থিতি জানাতে স্বাস্থ্য অধিদফতরের নিয়মিত স্বাস্থ্য বুলেটিন অনলাইনে প্রচারিত হয়। এই সময় ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক এই তথ্য জানান। তিনি দেশের সার্বিক করোনা পরিস্থিতি তুলে ধরেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ১৮২ জন আক্রান্ত হয়েছে। মোট সংক্রমিত হলো ৮০৩। করোনায় মৃত্যুবরণ করেছে গত ২৪ ঘণ্টায় ৫ জন। মোট মৃত্যু হয়েছে ৩৯ জনের। আমাদের ৩ জন রোগী ইতিমধ্যে সেরে উঠেছেন। মোট সেরে উঠেছেন ৪২ জন।’

তিনি বলেন, ‘আপনারা জানেন, নারায়ণগঞ্জ, মিরপুর, বাসাবো এবং আরও কয়েকটি এলাকা বেশি সংক্রমিত হয়েছে। আমি গতকাল সমস্ত বাংলাদেশের ডিরেক্টরদের সাথে কথা বলেছি, দেখা গেছে জেলাতে যেখানে সংক্রমিত হয়েছে, যেই ব্যক্তিগুলো সংক্রমিত করেছে তারা সব ঢাকা থেকে গেছে এবং নারায়ণগঞ্জ থেকে গেছে। এ বিষয়ে আমাদেরকে আরও কঠোর পদক্ষেপ নিতে হবে। লকডাউনটা আরও জোরদার করতে হবে। বিশেষ করে এই এলাকাগুলোর।’

মন্ত্রী বলেন, ‘প্রতিনিয়তই আমাদের লকডাউনের কার্যক্রম চলছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী প্রতিদিনই আমাদের নির্দেশনা দিচ্ছেন। তিনি নিজেও ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দেশবাসীকে অবহিত করছেন। আমরা উনারই নির্দেশনায় কাজ করে যাচ্ছি। কিন্তু লক্ষ্য করা যাচ্ছে এখনো লকডাউনটা মানুষ পুরোপুরি মেনে চলছে না। বাইরে ঘোরাঘুরি করছেন। কিন্তু আমাদের পরামর্শ হলো ঘরে থাকুন, নিরাপদে থাকুন। ঘরে থাকুন, ভালো থাকুন। নিজে ভালো থাকুন, দেশকে ভালো রাখুন।’

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘যারা কোভিড যোদ্ধা তাদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই। দিন-রাত অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন। কুয়েত মৈত্রী হাসপাতাল, কুর্মিটোলা হাসপাতালেও সেবা অব্যাহত রয়েছে। সংশ্লিষ্টদের ধন্যবাদ জানাই।