সংবাদ শিরোনাম

গাজীপুর ডিবি পুলিশের অভিযানে ১৫০১ পিস ফেনসিডিল উদ্ধার, গ্রেফতার-২কক্সবাজার দুই উপজেলায় পানি সংকটে কৃষকদের হাহাকার, বাঁধ নির্মাণে নানা অনিয়মবেলকুচিতে ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ প্রদান সম্পর্কে প্রেস ব্রিফিংদম্পত্তির অন্তরঙ্গ ভিডিও ধারণ করতে গিয়ে জেলহাজতে ছাত্রলীগ সম্পাদকপদ্মা নদীতে ভ্রমণতরীর উদ্বোধন করলেন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলীসবকিছু ছবি তুলে ফেসবুকে দিতে হয় না : আজহারীজামালপুরে ট্রেনের ধাক্কায় হাসপাতাল ওয়ার্ড বয়ের মৃত্যুবাগেরহাটে হস্তান্তরের শেখ হাসিনার উপহার ৪৩৩টি ঘর পাবনায় মায়ের পান আনতে গিয়ে শ্লীলতাহানির শিকার কলেজ ছাত্রী !শেরপুরে ফাঁসিতে ঝুলে যুবকের আত্মহত্যা

  • আজ ৮ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

যুক্তরাষ্ট্রে মোট ১৬০ বাংলাদেশির মৃত্যু

◷ ৩:১২ অপরাহ্ন ৷ শনিবার, এপ্রিল ১৮, ২০২০ আন্তর্জাতিক
pokj

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ করোনাভাইরাসে যুক্তরাষ্ট্রে একদিনে আরো তিন বাংলাদেশিসহ রেকর্ড আড়াই হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশটিতে ১৬০ বাংলাদেশিসহ মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩৭ হাজার ১৫৪ জনে দাঁড়িয়েছে। এছাড়াও আক্রান্ত হয়েছেন ৭ লাখের বেশি মানুষ।

এমন ভয়াবহ অবস্থার মধ্যেও মে মাসের শুরুতে কয়েকটি অঙ্গরাজ্যের লকডাউন খুলে দেয়া হবে জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

যুক্তরাষ্ট্রে অতীত রেকর্ড ছাড়াচ্ছে মৃতের সংখ্যা। কেবল নিউইয়র্কেই একদিনে মারা গেছেন এক হাজারের বেশি মানুষ। লাখ লাখ রোগীকে চিকিৎসা দিতে হিমশিম খাচ্ছে হাসপাতালগুলো।

এ অবস্থায় চরম আতঙ্ক আর অনিশ্চয়তায় দিন পার করছেন দেশটিতে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিরা। দীর্ঘদিন গৃহবন্দি থাকায় অর্থনৈতিক ক্ষতির পাশাপাশি মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছেন অনেকে।

এর মধ্যেই আগামী মাসের শুরুতে লকডাউন শিথিল করা হতে পারে বলে জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। শুক্রবার নিয়মিত ব্রিফিংয়ে তিনি দাবি করেন, অর্থনীতির স্বার্থেই এমন পদক্ষেপ নেয়া হবে।

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, আমরা বিশেষজ্ঞদের সাথে কথা বলব। এরই মধ্যে করোনা শনাক্তের সক্ষমতা আমরা অনেক বাড়িয়েছি। তাই আসছে সপ্তাহগুলোতে কিছু অঙ্গরাজ্যে খুলে দেওয়া হবে। কিছু নাটকীয় পদক্ষেপ নেয়ার মাধ্যমে ওই অঙ্গরাজ্যগুলোর নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে।

এদিকে মার্কিন গণমাধ্যমগুলো বলছে, যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক ফার্মাসিউক্যিাল কোম্পানি গিলিয়াড ফার্মার তৈরি করোনার ওষুধের দারুন সাফল্য মিলেছে। এর প্রয়োগে দুই তৃতীয়াংশ রোগীর উন্নতি হয়েছে বলেও দাবি করা হয়েছে।