সংবাদ শিরোনাম

বিয়ে পাগল স্বামীর গোপনাঙ্গ ব্লেড দিয়ে কেটে দিলেন স্ত্রী!সিরাজগঞ্জে আলাদা সড়ক দুর্ঘটনায় ব্যবসায়ী ও শিশু নিহতটিকা সবাইকে দিয়ে নিই, তারপর আমি নেবো: প্রধানমন্ত্রীসুনামগঞ্জে সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী ২ মাসের অন্তঃসত্ত্বা, ১ জন আটকসংঘর্ষ, গোলাগুলি অতঃপর দুই লাশে শেষ হলো চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনরংপুরে ইটভাটায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান, ১৯ লাখ টাকা জরিমানানির্বাচন বর্জন করলেন ইসলামী আন্দোলনের মেয়র প্রার্থী জান্নাতুল ইসলামদেশের প্রথম করোনা টিকা নিলেন নার্স রুনুমুন্সিগঞ্জে শিশু ধর্ষণের দায়ে যুবকের যাবজ্জীবনদেশে করোনা টিকা কার্যক্রম উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

  • আজ ১৪ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

মাশরাফির নানা ডা. মাসুদ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত

◷ ১০:২৩ অপরাহ্ন ৷ শনিবার, এপ্রিল ১৮, ২০২০ খুলনা
mash

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ইউরোলজী বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. মাসুদ আহম্মেদ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। তিনি মাশরাফি বিন মুর্তজার নানা। বিষয়টি নিজেই সংবাদমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জাতীয় দলের ক্রিকেটার মাশরাফি।

মাশরাফির নানা মাসুদ আহম্মেদের পরিবার ঢাকায় থাকে। করোনাভাইরাসে সৃষ্ট অবস্থার কারণে পরিবারের সবাই তাকে ঢাকায় ফেরার অনুরোধ করলেও তিনি সেটা করেননি। সঙ্কটময় এই অবস্থায় হাসপাতালে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন তিনি।

নানার কোভিড-১৯ পজিটিভ হওয়ার ব্যাপারে মাশরাফি বলেন, ‘আমার নানা মাসুদ আহম্মেদ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এখন মোটামুটি ভালো অবস্থায় আছেন। তবে গায়ে জ্বর আছে ওনার।’

উল্লেখ্য করোনাভাইরাস মোকাবিলায় মাঠে থেকে কাজ করে যাচ্ছেন মাশরাফি। সরকারি ও নিজ অর্থায়নে দুস্থ মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছেন বাংলাদেশের সাবেক এই অধিনায়ক। এর আগে কর্মহীন মানুষদের সাহায্যে বিসিবি থেকে পাওয়া এক মাসের বেতনের অর্ধেকটা দান করেন বাংলাদেশের সাবেক এই অধিনায়ক। এরপর নিজ অর্থায়নেই নড়াইলে ১ হাজার ২০০ পরিবারকে খাদ্য সহায়তা দেন তিনি।

নিজ অর্থায়নেই নড়াইলের ডাক্তার ও সংবাদকর্মীদের জন্য ৫০০ পিপিই (পার্সোনাল প্রটেকশন ইকুয়েপমেন্ট) দেন তিনি। এ ছাড়া বাড়ি বাড়ি গিয়ে সাধারণ রোগীদের চিকিৎসা দিয়ে যাচ্ছে তার নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশনের ভ্রাম্যমাণ মেডিকেল টিম।

এরপর নড়াইল সদর হাসপাতালের গেটে জীবাণুনাশক কক্ষ স্থাপন করেছে মাশরাফির নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশন। সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে যাওয়া রোগী, চিকিৎসক, নার্স, সাংবাদিক, অ্যাম্বুলেন্স চালকসহ অন্যান্যদের সুরক্ষা নিশ্চিতের লক্ষ্যে এই জীবাণুনাশক কক্ষ স্থাপন করা হয়েছে।

এ ছাড়া নড়াইল কারাগারের কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং বন্দীদের পাশে দাঁড়িয়েছেন মাশরাফি। তাদের নিরাপত্তার স্বার্থে রোববার সাবান, মাস্ক, গ্লাভস এবং স্যানিটাইজার বিতরণ করেছেন তিনি।