🕓 সংবাদ শিরোনাম

রোজিনার সঙ্গে যারা অন্যায় করেছে, তাঁদের জেলে পাঠান: ডা. জাফরুল্লাহকেরানীগঞ্জে ফ্ল্যাট থেকে যুবতীর অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধারপাটগ্রাম সীমান্তে অবৈধভাবে অনুপ্রবেশের দায়ে নারী ও শিশুসহ ২৪জন আটকসাংবাদিকদের ভয় দেখিয়ে সরকার গণমাধ্যমের কণ্ঠরোধ করতে চায়: ভিপি নুরসাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মামলা নয়, দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিন: হানিফআর এমন ভুল হবে না: নোবেলস্বেচ্ছায় কারাবরণের আবেদন নিয়ে থানায় অনুসন্ধানী সাংবাদিকেরাইসরায়েলি আগ্রাসনের প্রতিবাদে রাস্তায় ঢাবি শিক্ষক সমিতিযমুনা নদীতে ডুবে তিন কলেজ ছাত্রীর মর্মান্তিক মৃত্যু‘বাংলাদেশে সাংবাদিকতাকে তথ্য চুরি বলা হচ্ছে, এর চেয়ে দুঃখ আর নেই’

  • আজ বুধবার, ৫ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ ৷ ১৯ মে, ২০২১ ৷

রূপগঞ্জে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট করোনায় আক্রান্ত

Covid
❏ রবিবার, এপ্রিল ১৯, ২০২০ ঢাকা, দেশের খবর

লিখন রাজ, রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি- নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ফারজানা আক্তার।

ওই নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের করোনায় আক্রান্ত পজিটিভ হওয়ায় উপজেলা চেয়ারম্যান শাহজাহান ভুইয়া, ইউএনও মমতাজ বেগম, সহকারী কমিশনার ভুমি আফিফা খান, উপজেলার কর্মচারী ও তার পরিবারের সদস্যরা হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে।

রোববার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মমতাজ বেগম এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

উপজেলা পরিষদ সূত্রে জানা যায়, গত জেলা প্রশাসকের নির্দেশনা অনুযায়ী ফারজানা আক্তারকে রূপগঞ্জ ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে কাজ করতে পাঠানো হয়। যোগদানের পর থেকে তিনি উপজেলা চেয়ারম্যান, ইউএনও, সহকারী কমিশনার ভুমি, উপজেলার কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সঙ্গে সমন্বয় করে মাঠে করে যাচ্ছিলেন।

গত এক সপ্তাহ আগে জ্বর, ঠান্ডা ও কাশিতে ভোগছিলেন। পরে তার নমুনা পরিক্ষা করা হলেও ফলাফল পজিটিভ আসে। ফারজানা আক্রান্ত হওয়ার আতঙ্কে ওই নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের করোনায় আক্রান্ত পজিটিভ হওয়ায় আতঙ্কে উপজেলা চেয়ারম্যান শাহজাহান ভুইয়া, ইউএনও মমতাজ বেগম, সহকারী কমিশনার ভুমি আফিফা খান, উপজেলার কর্মচারী ও তার পরিবারের সদস্যরা হোম কোয়ারেন্টাইনে মাঝে রয়েছে। আর করোনা আক্রান্ত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ফারজানা আক্তারকে উপজেলার পরিষদের ডাক বাংলোতে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

উপজেলার কর্মকর্তা কর্মচারীরা পরিবারসহ হোমকোয়ারেন্টাইনে থাকলেও মোবাইল ফোনের মাধ্যমে উপজেলার যাবতীয় কার্যক্রম সম্পন্ন করবে। এছাড়া উপজেলার কর্মচারীদের ৩ টি গ্রুপে ভাগ হয়ে বাড়িতে থেকেই কার্যক্রম পরিচালনা করতে বলা হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মমতাজ বেগম বলেন, মানুষকে বুঝিয়েও ঘরে রাখা যাচ্ছে না। এখনো হাঁট বাজার গুলোতে ভিড় লেগেই আছে। মানুষ লকডাউন না মেনে এখনো বাইরে ঘুরাফেরা করছেন। আইন শৃঙ্ঘলা বাহিনী ও প্রশাসন মানুষকে ঘরে রাখতে দিনরাত কাজ করে যাচ্ছেন।