হবিগঞ্জে চিকিৎসক ও নার্সসহ একদিনে ১০ করোনা রোগী শনাক্ত

১১:৪২ পূর্বাহ্ন | মঙ্গলবার, এপ্রিল ২১, ২০২০ দেশের খবর, সিলেট

মঈনুল হাসান রতন, হবিগঞ্জ প্রতিনিধি- হবিগঞ্জে একদিনে চিকিৎসক-নার্সসহ ১০ জনের শরীরে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে।

সোমবার রাতে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের কাছে এই ১০ জনের রিপোর্ট আসে। আক্রান্তরা সবাই হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন।

হবিগঞ্জের সিভিল সার্জন সিভিল সার্জন ডা. কেএম মুস্তাফিজুর রহমান বিষয়টি গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, আক্রান্ত ১০ জনের মধ্যে কেউই হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি নেই। বর্তমানে সবাই নিজ নিজ বাড়িতে হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে। তবে তাদের চিকিৎসার বিষয়ে এখনও কোন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি।

এদিকে জেলা প্রশাসনের একটি বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে, আক্রান্ত ১০ জনের মধ্যে ৮ জনকে বাড়িতে রেখেই চিকিৎসা প্রদান করা হবে এবং শুধুমাত্র একজন চিকিৎসক ও একজন নার্সকে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালের আইসোলেশনে রেখে চিকিৎসা দেয়া হবে। যদিও এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আজ মঙ্গলবার নেয়া হবে বলে জানা যায়।

জানা যায়, সোমবার সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজে মোট ৮৮ জনের করোনা ভাইরাস পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে ৭৮ জনের ফলাফল নেগেটিভ আসলেও ১০ জনের শরীরে ধরা পড়ে করোনাভাইরাস। কাকতালীয়ভাবে করোনা শনাক্ত হওয়া ১০ জনের সবাই হবিগঞ্জ জেলায় বসবাসকারী।

যদিও দুইজন কুমিল্লার, কিন্তু তারা ধান কাটার শ্রমিক হিসেবে হবিগঞ্জ জেলায় অবস্থান করছেন। এছাড়াও ১ জল চিকিৎসক ও একজন নার্সের শরীরে এই করোনার অস্তিত্ব পাওয়া যায়।

আক্রান্তদের মধ্যে ৮ জন পুরুষ এবং ২ জন নারী রয়েছেন। এরমধ্যে লাখাই উপজেলায় ৩ জন, বানিয়াচং উপজেলায় ৩ জন, বাহুবল উপজেলায় ১ জন, আজমিরীগঞ্জ উপজেলায় ২ জন ও চুনারুঘাট উপজেলায় ১ জন।

১৭, ১৮ ও ১৯ এপ্রিল যাদের নমুনা পরীক্ষার জন্য প্রেরণ করা হয়েছিল তাদের মাঝে ১০ জনের রিপোর্ট পজেটিভ এসেছে। এর মাঝে ২২ থেকে ৩২ বছরের মাঝে আছে ৭ জন। ৪৫ বছরের ১ জন, ৫৫ বছরের ১ জন ও ৬৪ বছরের ১ জন।

এদিকে, আক্রান্ত সকলেই বর্তমানে নিজ নিজ বাড়িতে হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে। ফলে এলাকার মধ্যে করোনা সংক্রামণের প্রবল ঝুঁকি থাকায় প্রত্যেকটি এলাকা লকডাউন করা হবে। পাশাপাশি লকডাউন কঠোর করতে ওই এলাকাগুলোতে ২৪ ঘন্টা পুলিশ মোতায়েন করা হবে বলেও জানান সিভিল সার্জন।