খেয়ে না খেয়ে দিন কাটাচ্ছে বাউফলের বাউল পরিবারটি!

❏ বুধবার, এপ্রিল ২২, ২০২০ দেশের খবর, বরিশাল

কৃষ্ণ কর্মকার, বাউফল (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি- ভালো নেই পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার বাউল শিল্পী মিজানের পরিবার। করোনা ভাইরাসের কারনে এলাকা জুড়ে চলছে অঘোষিত লকডাউন। রাস্তাঘাট জনমানব শুণ্য। কোথাও কেউ নাই। কেউ এখন গান শোনে না। সবাই ঘরে বসে আছে। এ কারণে ওই বাউল পরিবারের কোন রোজগার না থাকায় খাদ্যাভাবে দিন কাটাচ্ছে।

উপজেলার সদর ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের গোসিংগা গ্রামের এক নিভৃত পল্লীর বাসিন্দা বাউল শিল্পী মিজান মোল্লার। পরিবারের নয় সদস্যের তিন জনই গানের সাথে সম্পৃক্ত বলে এলাকার লোকজন বাউল পরিবার হিসেবেই চিনে। শিল্পী মিজানের বাবা ইউনুস মোল্লা (৭৬) ১৯৮৪ সালে সদর ইউনিয়ন থেকে বিপুল ভোটে ইউপি সদস্য নির্বাচিত হন। এলাকার মানুষ মধ্যবিত্ত্ব হিসেবে জানলেও বর্তমানে ওই পরিবারের দিন যাচ্ছে অর্ধাহারে অনাহারে।

শিল্পী মিজান বলেন, আগে দেশের বিভিন্ন এলাকায় বাউল গানের আসরে ডাক পড়ত। সেখানে গিয়ে গান গাইলে কিছু টাকা পাওয়া যেত। আর বাকী সময়ে বাড়ির কাছেই ছোট্র কাঁচা বাজারে কাঁচামাল বেচা কেনা করতো। করোনা ভাইরাসের কারনে প্রশাসন ওই বাজারটি বন্ধ করে দিয়েছেন। এখন সব কিছুই স্থবির। ঘর থেকে বের হওয়া যায় না। যতটুকু সঞ্চয় ছিল তা এতদিনে শেষ হয়ে গেছে। ধার কর্য করে কত দিন চলা যায়।

মিজানের বাবা সাবেক ইউপি সদস্য ইউনুস মোল্লা বলেন, পরিবারের সাত সদস্য নিয়ে অনেক কষ্টে আছি। সাবেক ইউপি সদস্য বলে না পারি কিছু বলতে না পারি সইতে। সাহায্য পাওয়ার প্রাপ্যতা থাকলেও মুখ লজ্জায় কারো কাছে গিয়ে চাইতে পারি না।

বাউফল সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. জসিম উদ্দিন জানান, বিষয়টি আমার জানা ছিলনা। আমি খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা নিব।